খালেদার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:১৬

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা বাড়িয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আবেদন জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

খালেদা জিয়াকে বিচারিক আদালতের দেওয়া পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের সাজা বাড়াতে দুদকের করা রিভিশন আবেদনের শুনানির শেষদিনে মঙ্গলবার হাইকোর্টে এ আরজি জানান তারা। একইসঙ্গে সাজা বাতিল ও খালাসের আবেদন জানিয়ে খালেদা জিয়া ও অন্য আসামিদের করা আপিল আবেদনের শুনানিও শেষ করেছে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ।

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে সবগুলো রিভিশন ও আপিল আবেদনের শুনানি একসঙ্গে চলছে।

রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ শুনানি শেষ করেছে। তবে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আরো সময় চেয়েছেন। কিন্তু আদালত সময় দেননি। এরপর তারা আদালতকক্ষ থেকে চলে যান। পরে আদেশের জন্য বুধবার দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

দুদকের আইনজীবী বলেন, ‘এ মামলায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। তবে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছেন বিচারিক আদালত। আমরা খালেদা জিয়ার সাজা বাড়াতে আবেদন করেছি। শুনানিতেও তার সর্বোচ্চ সাজা চেয়েছি।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি পুরান ঢাকার বকশীবাজারে কারা অধিদফতরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ-৫ মো. আখতারুজ্জামানের আদালত এ মামলার রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড এবং অন্য সব আসামিকে ১০ বছরকরে কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে সকল আসামিকে ২ কোটি টাকা করে জরিমানা করেন।

রায় ঘোষণার পরপরই খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকায় নাজিম উদ্দীন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়।অসুস্থতার কারণে বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন। আদালতে থাকা অন্য দুই আসামি মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল এবং ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদকেও কারাগারে নেয়া হয়। রায়ের বিরুদ্ধে কারাগারে থাকা এই তিন আসামি উচ্চ আদালতে আপিল করেন। অন্যদিকে খালেদা জিয়ার সাজা বাড়াতে রিভিশন আবেদন করে দুদক। 

এ মামলার ছয় আসামির মধ্যে পলাতক অন্য তিন আসামি হলেন- বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

(ঢাকাটাইমস/২৩অক্টোবর/এমএবি/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত