অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা নিয়ে কর্মশালা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৪:৩০ | প্রকাশিত : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৩:৩৪
ফাইল ছবি

২০১৮ সালের অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে কর্মশালার আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ অ্যামেচার রেডিও লীগ (বিএআরএল)। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে একাধিক কর্মশালার প্রস্তুতি নিচ্ছে সংগঠনটি। 

এই কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের দেয়া হবে লেসন নোট, সাজেশন্স এবং প্রশ্ন ব্যাংক। কর্মশালা পরিচালনা করবেন দেশের সিনিয়র হ্যাম এবং এই বিষয়ে অভিজ্ঞরা। 

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ইতোমধ্যে অ্যামেচার রেডিও লাইসেন্স পেতে ইচ্ছুকদের কাছ থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ৮ ডিসেম্বর। আবেদনের শেষ তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৮।

বিটিআরসির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে ১০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। এতে নৈব্যক্তিক এবং সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন থাকবে। পরীক্ষায় বেসিক ইলেকট্রোনিক্স, ফান্ডামেন্টাল রেডিও ইঞ্জিনিয়ারিং, রেডিও রেগুলেশন, অ্যামেচার রুলস, কোডস ও ব্যবহারিক ইত্যাদি বিষয়ে প্রশ্ন থাকবে। 

বিএআরএল-এর সভাপতি মো. দিদারুল হুসাইন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘গত বছরের মত এবারও অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে কর্মশালার আয়োজন করতে যাচ্ছে বিএআরএল। এই কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে পরীক্ষার্থীরা অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পাবেন। পাবেন, গাইডলাইন, মডেল কোশ্চেন, সাজেশন্স ইত্যাদি।’

মো. দিদারুল হুসাইন আরো বলেন, ‘ঢাকায় একাধিক কর্মশালা আয়োজন করার ইচ্ছে রয়েছে আমাদের। ঢাকার বাইরেও কর্মশালা করা যেতে পারে। এজন্য শিগগিরই বর্তমান কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্যদের নিয়ে মিটিংয়ে বসবো। এরপর কর্মশালার দিনক্ষণ ও এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে।’

১৯৯১ সালে সাবেক বাংলাদেশ তরঙ্গ ও বেতার বোর্ডের ১৮ তম সভায় এদেশে প্রথম অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস প্রবর্তণের জন্য লাইসেন্স প্রদান করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এরপর ১৯৯৫ সালে প্রথম অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে বিটিআরসি হতে ২০০৩, ২০০৮, ২০১৩ এবং সর্বশেষ ২০১৭ সালে অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা নেয়।

২০১৩ সালের পরীক্ষায় ১৬৬ জন অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে ১৪৭ জন পরীক্ষার্থী কৃতকার্য হন। ২০১৭ সালে ২১০ জন পরীক্ষা দেন। যাদের মধ্যে ১৭৭ জন কৃতকার্য হন। 

অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরিক্ষার্থীগণকে বিটিআরসি হতে অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস সার্টিফিকেট দেয়া হয়। পরবর্তীতে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের অনুকূলে কল সাইনসহ অ্যামেচার রেডিও লাইসেন্স দেয়া হয়। এরপর তারা রেডিও সেট কেনার জন্য বিটিআরসির কাছ থেকে অনাপত্তিপত্র সংগ্রহ করে রেডিও সংগ্রহ করবেন। সাধারণত হ্যাম রেডিও সেট বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। 

অ্যামেচার রেডিও সাধারণত নির্দিষ্ট বেতার তরঙ্গে অবাণিজ্যিকভাবে তথ্য আদান প্রদান, গবেষণা, ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণ এবং জরুরি অবস্থায় ব্যবহৃত একটি টেলিযোগাযোগ সার্ভিস।
 
‘অ্যামেচার’ শব্দটি সাধারণত আর্থিক সংশ্লিষ্টতাবিহীন সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে প্রযুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ে আগ্রহী ব্যবহারকারীকে বাণিজ্যিক ব্রডকাস্টিং, জননিরাপত্তা প্রদানকারী সংস্থা অথবা পেশাদার টু-ওয়ে সার্ভিস হতে পৃথক করার জন্য ব্যবহার করা হয়। 

প্রাকৃতিক দূর্যোগ কিংবা জরুরি অবস্থায় অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসাবে ভূমিকা রাখে। অ্যামেচার রেডিও অপারেটরদের হ্যাম বলা হয়। হ্যামরা বিনা খরচে রেডিও দিয়ে অপর হ্যামের সঙ্গে কথা বলেন। বিশ্বব্যাপী এটি জনপ্রিয় একটি শখ। 

(ঢাকাটাইমস/৭নভেম্বর/এজেড)
   

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত