‘রাজশাহীর সমাবেশ থেকে গণআন্দোলন

ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী
 | প্রকাশিত : ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:২১
ফাইল ছবি

রাজশাহীতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিভাগীয় সমাবেশ থেকে সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য গণআন্দোলন শুরু হবে। শুক্রবারের এই সমাবেশে এতো মানুষের সমাগম হবে, যা অতীতে ঐক্যফ্রন্ট কিংবা রাজশাহীর কোনো সমাবেশে হয়নি। ঐক্যফ্রন্টের রাজশাহী বিভাগের সমন্বয়ক বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু এসব কথা বলেছেন।

মিনু বলেন, ‘অতীতে বড় বড় নেতাদের বক্তব্য শুনতে মানুষের ঢল নামতো। ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশেও তাই হবে। লাখো লাখো মানুষের ঢল নামবে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে। তবে পুলিশের কিছু অতি উৎসাহী এবং উচ্চভিলাষী কর্মকর্তা সমাবেশে নানাভাবে বাধা দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।’

সমাবেশ উপলÿে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী মহানগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে ঐক্যফ্রন্ট। সেখানে এসব কথা জানান মিজানুর রহমান মিনু।

তিনি বলেন, সমাবেশের মাত্র ১৪ ঘণ্টা আগে ১২টি শর্তে আমরা সমাবেশ করার লিখিত অনুমতি পেলাম। এখন জনসমাগম যেন কম হয় সে জন্য বাস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম, সিলেট, ঢাকাতেও ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশকে কেন্দ্র করে এমনটি করা হয়েছিল।  তারপরও এই সমাবেশ সফল হবে। এখান থেকেই সুষ্ঠু নির্বাচনের গণআন্দোলন শুরু হবে।

মিনু বলেন, ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মাহামুদুর রহমান মান্না, আসম আবদুর রব, কর্নেল অলি আহমেদ, আন্দালিব রহমান পার্থের মতো নেতারা রাজশাহীর সমাবেশে যোগ দেবেন। এই সমাবেশ থেকে এমন কর্মসূচি আসবে যা দেশের রাজনীতির দৃশ্যপট পাল্টে দেবে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগার থেকে মুক্ত হবেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দিন ঠিক করার ব্যাপারে মিনু বলেন, সরকারের আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনকে দেশের জনগণ মানে না। অযোগ্য ব্যক্তিদের দিয়ে এই কমিশন করা হয়েছিল। জনগণকে নিয়ে প্রয়োজনে আবার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। জনগণের ভোটের অধিকার রÿা করা হবে।

ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাকর্মীদের পুলিশ গ্রেপ্তার করতে শুরু করেছে বলেও সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেন মিজানুর রহমান মিনু। তিনি বলেন, ‘অনেককেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শতাধিক নেতাকর্মীর বাড়িতে পুলিশ গেছে। তবে ঠিক কতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা স্পষ্টভাবে জানাননি মিনু।’

সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন শওকত, মহানগরের সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন, জেএসডির কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি এমএ গোফরান, নগর সম্পাদক মারুফ আহমেদ পিকু, জাসদ নেতা মনির আহমেদ বাবর, শফিকুল আলম বাবর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/০৮নভেম্বর/আরআর/ওআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত