মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে রান পাহাড়ে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:৩৫

ঝলমলে ইনিংস খেললেন মুশফিকুর রহিম। সোমবার তাকে যোগ্য সঙ্গ দিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদী হাসান মিরাজ। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসাবে টেস্টে দুইটি ডাবল সেঞ্চুরি করার কীর্তি গড়েছেন মুশফিক। ২১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তিনি অপরাজিত থাকেন ৬৮ রান করে। যার সুবাদে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহটাও হয় অনেক বড়। সাত উইকেটে ৫২২ রান সংগ্রহ করে দিনের শেষ সেশনে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে বাংলাদেশ। পরে জিম্বাবুয়ে তাদের প্রথম ইনিংসের ব্যাট করতে নেমে এক উইকেটে ২৫ রান সংগ্রহ করে দিনের খেলা শেষ করে। দিন শেষে ৪৯৭ রানের এগিয়ে থাকে বাংলাদেশ। দিন শেষে ব্রায়ান চারি ১০ রান করে ও ডোনাল্ড তিরিপানো শূন্য রান করে অপরাজিত আছেন। ১৪ রান করে আউট হন হ্যামিলটন মাসাকাদজা। তাইজুল ইসলামের বলে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে ধরা পড়েন তিনি।

মিরপুরে গতকাল শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচ। রবিবার টস জিতে ব্যাট করতে নামে টাইগাররা। পাঁচ উইকেটে ৩০৩ রান সংগ্রহ করে প্রথম দিন শেষ করে বাংলাদেশ। রবিবার মুমিনুল হক ১৬১ রান করে আউট হয়েছিলেন। প্রথম দিন ১১১ রান করে অপরাজিত ছিলেন মুশফিকুর রহিম।

সোমবার দিনের প্রথম সেশনে কোনো উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ। মুশফিক-রিয়াদ প্রথম সেশন পার করে দেন। দ্বিতীয় সেশনে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও আরিফুল হক আউট হন। রিয়াদ করেন ৩৬ রান। আরিফুল করেন ৪ রান। মুশফিকুর রহিম যখন ডাবল সেঞ্চুরি থেকে পাঁচ রান দূরে তখনই চা বিরতি দেন আম্পায়াররা। চা বিরতির পরপরই ডাবল সেঞ্চুরির দেখা পান মুশফিক। মুশফিক ডাবল সেঞ্চুরি করার আগেই মেহেদী হাসান মিরাজ হাফ সেঞ্চুরি করেন।

ইনিংসের ১৫৪তম ওভারে বোলিংয়ে ছিলেন সিকান্দার রাজা। ওভারের তৃতীয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন মিরাজ। আর পঞ্চম বলে সিঙ্গেল নিয়ে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করেন মুশফিকুর রহিম। এর কিছুক্ষণ পরই বাংলাদেশ ইনিংস ডিক্লেয়ার করে। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ মোট ব্যাট করে ১৬০ ওভার। 

বাংলাদেশের যে সাতটি উইকেটের পতন ঘটে তার মধ্যে জিম্বাবুয়ের পেসার কাইল জারভিস ৭১ রান দিয়ে পাঁচটি উইকেট শিকার করেন। টেস্টে তিনি তৃতীয়বারের মতো পাঁচটি উইকেট শিকার করেন। বাকি দুইটি উইকেটের মধ্যে ডোনাল্ড তিরিপানো ১টি ও টেন্ডাই সাতারা ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ আজ একটি রেকর্ড গড়েছে। মিরপুর টেস্টের আগে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্কোর ছিল ৫০৩। সোমবার এই রান ছাড়িয়ে যায় বাংলাদেশ। ৫২২ রান সংগ্রহ করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে টাইগাররা। টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্কোর হলো ৬৩৮। ৫২২ রানের এই ইনিংসটি বাংলাদেশের পঞ্চম সর্বোচ্চ।

মুশফিকুর রহিম তার ডাবল সেঞ্চুরি করার পথে বেশ কয়েকটি রেকর্ড গড়েছেন। তার ২১৯ রানের ইনিংসটি টেস্টে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ। এর আগে ২১৭ রান করে এই রেকর্ডের মালিক ছিলেন সাকিব আল হাসান। গতকাল অষ্টম উইকেট জুটিতে মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে ১৪৪ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মুশফিকুর রহিম। টেস্টে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে অষ্টম উইকেট জুটিতে এটিই এখন সর্বোচ্চ। গত রবিবার চতুর্থ উইকেট জুটিতে মুমিনুল হকের সঙ্গে ২৬৬ রানের জুটি করেও রেকর্ড গড়েছিলেন।

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে এখন পর্যন্ত চারটি ডাবল সেঞ্চুরি হয়েছে। এর মধ্যে মুশফিকুর রহিম করেছেন দুইটি। তামিম ইকবাল করেছেন একটি ও সাকিব আল হাসান করেছেন একটি।  ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০০ রান করেছিলেন মুশফিক। ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০৬ রান করেছিলেন তামিম। ২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২১৭ রান করেছিলেন সাকিব।

(ঢাকাটাইমস/১২ নভেম্বর/এসইউএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত