দায়িত্ব উপভোগ করছেন তাইজুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:৩৫ | প্রকাশিত : ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:২৫

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দলে নেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সাকিব না থাকায় বাংলাদেশের স্পিন বিভাগের দায়িত্বটা অনেকটাই তাইজুলের ইসলামের উপর। বাড়তি দায়িত্বের এই সুযোগ ভালোভাবেই পালন করছেন এই স্পিনার। পাশাপাশি এই দায়িত্বটা বেশ উপভোগ করছেন তিনি।

চলামান জিম্বাবুয়ে সিরিজে দারুণ সময় পার করছেন তাইজুল ইসলাম। সিলেট টেস্টে নিজের ক্যারিয়ার সেরা ১১ উইকেট নিয়ে মিরপুর টেস্টেও আলো ছড়াচ্ছেন তিনি। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩০৪ রানে অলআউট হয়েছে জিম্বাবুয়ে। মূলত জিম্বাবুয়ের নয়টি উইকেট পড়েছে। টেন্ডাই সাতারা ইনজুরির কারণে ব্যাটিংয়ে নামতে পারেননি। সফরকারীদের নয় উইকেটের পাঁচটিই নিয়েছেন তাইজুল। এর মাধ্যমে পাঁচ উইকেট শিকারের হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি। সিলেট টেস্টের প্রথম ইনিংসে ছয়টি ও দ্বিতীয় ইনিংসে পাঁচটি করে উইকেট শিকার করেছিলেন এই স্পিনার।

মঙ্গলবার দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিবের না থাকার প্রসঙ্গ উঠলে তাইজুল ইসলাম বলেন, ‘সাকিব ভাই না থাকার কারণে আমার তেমন কোনো বাড়তি তৃপ্তি নেই। তবে উনি না থাকায় বেশি বোলিং করার সুযোগ পাচ্ছি। সাকিব ভাই থাকলে হয়তো আমার উপর এতটা দায়িত্ব পড়ত না। তারপরও আমি এই দায়িত্ব খুব উপভোগ করছি।’

বল হাতে ছন্দে থাকা নিয়ে তিনি বলেন, ‘আসলে ভালো পারফর্ম করলে সবারই ভালো লাগে।’

তবে নিজে ভালো বোলিং করলেও দলের ভালো অবস্থানটা নিয়েই খুশি তাইজুল। বলেন, ‘আমি ভালো করলেও দলের ভালোটা আগে। দলটা ভালো পজিশনে থাকলে ভালো লাগে। আর মনে হচ্ছে, আমাদের দল এখন ভালো একটা পজিশনে আছে। আমরা এখন যেটাই করি সেটাই আমাদের জন্য ইতিবাচক হবে।’

মিরপুরের উইকেটটা রহস্যময়। উইকেট থেকে সবসময় যেটা আশা করা হয় সেটা হয় না অনেক সময়। জিম্বাবুয়ের ইনিংসে লাঞ্চের পর মনে হয়েছিল খুব দ্রুতই অলআউট হবে তারা। কিন্তু না, বড় পার্টনারশিপ গড়েন ব্রেন্ডন টেইলর-পিটার মুর। দুজন মিলে গড়েন ১৩৯ রানের পার্টনারশিপ।

ম্যাচের এখনো বাকি দুইদিন। এমন উইকেট নিয়ে প্রত্যাশার বিষয়ে তাইজুল বলেন, ‘উইকেট অনুযায়ী ওরা পার্টনারশিপ করেছে। কিন্তু আমরা ভেঙে পড়িনি। এখনো দুইদিন বাকি আছে। যতো সময় যাবে উইকেট খারাপ হওয়ার সম্ভবনা বেশি হবে। তারপরও আমাদের চেষ্টা আমরা করে যাব।’

নিজের পঞ্চম উইকেট পেতে বেশ সময় নিয়েছেন তাইজুল। উইকেটের চরিত্র বদলানোর কারণেই মূলত এটা হয়েছিল। তবে শেষের দিকে নিজের পঞ্চম উইকেট শিকার করতে পেরে খুশি তিনি। পঞ্চম উইকেট পাওয়া প্রসঙ্গে তাইজুল বলেন, ‘উইকেটটা তাড়াতাড়ি হয়নি। পঞ্চম উইকেটটা পেতে একটু সময় লেগেছে। ওরা ভালো একটা পার্টনারশিপ করছে। যেহেতু এটা ক্রিকেট খেলা পার্টনারশিপ হবেই। তারপরও আশা ছাড়িনি। যাক শেষের দিকে আল্লাহর রহমতে হয়ে গেছে।’

১৯ রানের জন্য ফলোঅন এড়াতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। এখন দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ব্যাট করবে নাকি অতিথিদের ফলোঅনে ব্যাট করতে পাঠাবে সেই বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলেও জানান তাইজুল ইসলাম।

(ঢাকাটাইমস/১৩ নভেম্বর/এইচএ/এসইউএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত