ক্রীড়াঙ্গন থেকে জাতীয় নির্বাচনে

ক্রীড়া প্রতিবেদক
 | প্রকাশিত : ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:০০

ভোটযুদ্ধ আসন্ন। দেশজুড়ে এখন নির্বাচনী হাওয়া। চারদিকে ভোটের আমেজ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ৩০ ডিসেম্বর। এবার ক্রীড়াজগতের বেশ কয়েকজন তারকা অংশ নিচ্ছেন নির্বাচনে। ক্রীড়া সংগঠকেরাই শুধু নন, কয়েকজন খেলোয়াড়ও মনোনয়ন পাওয়ার লড়াইয়ে নেমেছেন।

এই তালিকায় সবচেয়ে বড় নাম বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পতাকায় নির্বাচন করতে যাচ্ছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’। তার মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি একপ্রকার নিশ্চিত। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) থেকে মনোনয়ন চেয়েছেন। এছাড়া সাবেক খ্যাতিমান ফুটবলার মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমে বীর বিক্রম, দেওয়ান শফিউল আরেফিন টুটুল, আব্দুস সালাম মুর্শেদী, খুরশিদ আলম বাবুল, আরিফ খান জয়, সাইদুর রহমান প্যাটেল, ক্রিকেটার নাঈমুর রহমান দুর্জয় ও সাবেক হকি তারকা আরিফুল হক প্রিন্সের মতো সুপরিচিত ক্রীড়াব্যক্তিত্বরা ভোটের মাঠে যোগ করেছেন বাড়তি উত্তাপ।

ক্রিকেট দলকে একটা সময় নেতৃত্ব দেওয়া নাঈমুর রহমান দুর্জয় আর সাফজয়ী দলের সদস্য আরিফ খান জয় গত সংসদ নির্বাচনে নিজ নিজ এলাকায় জিতেছিলেন। তবে তাদের নিয়ে এখন খুব বেশি আলোচনা হচ্ছে না, যতটা হচ্ছে মাশরাফিকে নিয়ে। নড়াইল-২ আসন থেকে নির্বাচন করতে চান মাশরাফি। মাশরাফির সঙ্গে বিশ^সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও রাজনীতিতে যোগ দিতে চেয়েছিলেন। তবে পরে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি।

বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে আমিনুল হকের নামটি চিরভাস্বর হয়ে থাকবে। দীর্ঘদিন খেলেছেন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে, দেশকে দিয়েছেন নেতৃত্ব। ফুটবলকে বিদায় জানানোর পর এখন তিনি পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ। বিএনপি থেকে তিনি মনোনয়ন চাইছেন ঢাকা-১৪ ও ১৬ আসন থেকে।

বিএনপির সহকারী ক্রীড়া সম্পাদক ও জাতীয় হকি দলের সাবেক খেলোয়াড় আরিফুল হক প্রিন্স টাঙ্গাইল-৫ আসন থেকে দলীয় প্রার্থী হওয়ার আশায় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। বর্তমান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার মাগুরা-২ আসনের সংসদ সদস্য। ওই আসনে তার মনোনয়ন পাওয়া অনেকটা নিশ্চিত।

জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আরিফ খান জয় গত নির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়েছিলেন নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে। এবারও তিনি ওই আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তবে তার মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে কিছুটা শঙ্কা আছে।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক, বিসিবির পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয় গত নির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়েছিলেন মানিকগঞ্জ-১ আসন থেকে। কিছুদিন আগে খুলনা-৪ আসনের উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক ফুটবলার আব্দুস সালাম মুর্শেদী। অনেকটা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, আসন্ন নির্বাচনে তিনি ওই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন।

গত নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য হন আবাহনীর পরিচালক ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি (বিসিবি) নাজমুল হাসান পাপন। এবারও তার ওপর আস্থা রাখবে আওয়ামী লীগ। বিসিবির সাবেক সভাপতি ও পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল গতবার কুমিল্লা-১০ আসন থেকে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। এবারও এই আসনে মনোনয়ন চাইছেন তিনি।

ঢাকা মোহামেডানের সাবেক সহসভাপতি শরিফুল আলম কিশোরগঞ্জ-৭ আসনে বিএনপির টিকিটে নির্বাচন করতে চাইছেন। বাফুফের সহসভাপতি ও আবাহনীর ভারপ্রাপ্ত ডিরেক্টর ইনচার্জ কাজী নাবিল আহমেদ যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য। এবারও তিনি একই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইছেন। সাবেক কৃতী ফুটবলার মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম ভোলা-৩ আসন থেকে প্রার্থী হতে চাইছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত