বিএনপির বোর্ডে তারেক: ‘কিছুই করার নেই ইসির’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ২১:২৩ | প্রকাশিত : ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:১৪

তারেক রহমানের বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎতার নেয়ায় নির্বাচন কমিশনের কিছুই করার নেই। জানিয়েছেন সংস্থাটির সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। সচিব বলেন, ‘এটি আচরণবিধির মধ্যে পড়ে না।’

রবিবার বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকারে স্কাইপে যুক্ত হন যুক্তরাজ্যে অবস্থানকারী দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। আর আওয়ামী লীগ নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ গিয়ে বলে, দণ্ডিত এবং বিএনপির নেতৃত্বে থাকায় অযোগ্য তারেকের এই সাক্ষাৎকার গ্রহণ আইনবিরুদ্ধ।

যুক্তি হিসেবে আওয়ামী লীগ বলছে, যেহেতু বিএনপির গঠনতন্ত্রের সাত ধারা বাদ দিয়ে সংশোধিক গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করার আদেশ এসেছে, তাই তারেক রহমানের এখন বিএনপির পদে থাকার যোগ্যতা নেই। কারণ, এই ধারা অনুযায়ী দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিতদের বিএনপির সদস্য হিসেবে থাকার সুযোগ নেই।

তবে সোমবার কমিশন সচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগের অভিযোগের বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তিনি (তারেক রহমান) বিদেশ থেকে অনলাইনে কথা বলেছেন। উনি যেহেতু দেশে নাই তাই তার ক্ষেত্রে এটি আচরণবিধির মধ্যে পড়ে না। এক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের কিছুই করার নেই।’

বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান যেহেতু দণ্ডিত তাই তাদের ছবি দলীয় প্রার্থীর পোস্টারে ব্যবহার করা যাবে কি না- জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, ‘তারা ব্যবহার করতে চাইলে করতে পারেন। এটা রাজনৈতিক দলের দলীয় সিদ্ধান্ত।’

কমিশনের বেঁধে দেয়া সময়ে আগাম নির্বাচনী প্রচারণা সামগ্রী অপসারণ না হওয়ার বিষয়ে এক প্রশ্নে ইসি সচিব বলেন, ‘সারাদেশ থেকে এরই মধ্যে প্রায় ৯০ শতাংশ সরানো হয়েছে। যারা সরায়নি তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে সেগুলো সরানোর জন্যও আজকে সংশ্লিষ্টদের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে। নির্বাচনি আচরণবিধি মানা হচ্ছে কি না তা দেখার জন্য এরই মধ্যে প্রতি উপজেলায় একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে।’

নয়া পল্টনের সংঘর্ষের প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ

গত বুধবার নয়া পল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় নির্বাচন কমিশনকে প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ।

ইসি সচিব বলেন, ‘গত ১৪ নভেম্বর নয়া পল্টনে অনাকাঙ্খিত ঘটনার অডিও, ভিডিও ও স্টিল ছবিসহ বিস্তারিত প্রতিবেদন আইজিপির কাছে চাওয়া হয়েছিল। তিনি প্রতিবেদন দিয়েছেন। এতে দেখা যায় পল্টনের ঘটনায় ফৌজদারি অপরাধ হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলতে আপত্তি নাই। তবে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয় এমন ব্যক্তিদের অহেতুক হয়রানি না করতে আইজিপিকে নির্দেশনা দিতে বলেছেন কমিশন।’

বিএনপির দেয়া মামলা-গ্রেপ্তারের তালিকার বিষয়ে সচিব বলেন, ‘বিএনপির তালিকা ৮ নভেম্বরের আগে কিছুু কিছু ঘটনা রয়েছে। সেগুলোর ব্যাপারে ইসির কিছু করার নেই। তফসিলের পরেরগুলোর অপরাধের বিস্তারিত বর্ণনা না করায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। পরে এ বিষয়ে আলোচনা করা হবে।’

‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম, বিজ্ঞাপন আকারে গেলে সমস্যায় নেই

সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের জন্য টেলিভিশনে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিজ্ঞাপন প্রচার নিয়ে কোনো অভিযোগ পায়নি বলেও জানান সচিব। বলেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে কেউ আমাদের কাছে অভিযোগ দেয়নি। কেউ অভিযোগ দিলে কর্তপৃক্ষ কে তা আমাদের দেখতে হবে। বিজ্ঞাপন না হয়ে থাকলে কেউ অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত