নির্বাচনের দিন শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লড়ব: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ নভেম্বর ২০১৮, ২২:৪৬ | প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৮, ২২:৩৮
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লড়াই করার ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বলেছেন, 'আমরা খুব কঠিন সময়ে আছি। আমরা দশ বছর ধরে চেষ্টা করছি। শেষ চেষ্টা ৩০ ডিসেম্বর।'

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট অডিটোরিয়ামে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সুযোগ একটা এসেছে। হাত-পা বেঁধে রাখার মধ্যেও আমাদের এগুতে হবে। নির্বাচনে আমাদের সকল অস্ত্র নিয়ে নামতে হবে। আর সেই অস্ত্র হলো ভোটের অস্ত্র। প্রতিরোধের দেয়াল তৈরির বিকল্প নেই। জনগণকে সঙ্গে ভোট কেন্দ্রে আসতে হবে। নির্বাচনের দিন শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লড়াই করব। বুকে বুক বেঁধে লড়াই করব।’

তিনি আরো বলেন, জনগণের শক্তি দিয়ে অবাধ নির্বাচন দিতে বাধ্য করতে হবে। প্রতিরোধ তৈরি করতে হবে। এটা বাঁচা-মরার সংগ্রাম। আপনারা না পালিয়ে বেরিয়ে গ্রামে যান। নির্বাচনে যাওয়া আন্দোলনের অংশ।

সরকার প্রচণ্ড ভয় পেয়েছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, তারা ইন্টারনেট, স্কাইপ বন্ধ করেছে। কতটুকু দেউলিয়াপনা না হলে তারা কি আমাদের প্রতীক ধানের শীষ নিয়ে রিট করে।

তিনি বলেন, তারেক রহমান নেতাকর্মীদের বলেছেন, নির্বাচনের দিনকে বিপ্লবের দিনে পরিণত করতে। দেশের বিচারহীনতা থেকে মুক্তি পেতে হলে ব্যালটের মাধ্যমে সরকারকে সরিয়ে দেওয়া। নেতাকর্মীরাও ওয়াদা দিয়েছেন সর্বশক্তি দিয়ে আমরা লড়াই করব। এই নির্বাচনের মাধ্যমেই তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে হবে।

সভায় স্কাইপে বন্ধের সমালোচনা করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘লন্ডনে একজন মানুষ কথা বলে, আর তারা ঢাকায় বসে কাঁপে।’

মান্না বলেন, একদিকে শত শত নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে, অন্যদিকে ভিক্ষুককে ভিক্ষা দিয়ে থ্যাঙ্কিউ পিএম বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে। এ জন্য ধিক্কার জানাতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এমাজউদ্দীন আহমদ সবাইকে নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে মানুষের সঙ্গে মিশে কাজ করার আহ্বান জানান।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিএনপির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তারেককে ভালোবাসলে তার প্রমাণ দিতে হবে নির্বাচনের মাধ্যমে। এক লাখ লোক গ্রেপ্তার করলেও মাঠ ছাড়া যাবে না। 

সভাপতির বক্তব্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, তারেক রহমানের সাংগঠনিক ক্ষমতা দেখে আওয়ামী লীগ সরকার আতঙ্কিত। বিচার বিভাগ স্বাধীন হলে তারককে দেশের বাইরে থাকত হতো না এবং খালেদা জিয়ার সাজা হতো না। শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে দেশে পরিবর্তন হবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

(ঢাকাটাইমস/২০নভেম্বর/বিইউ/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত