অরিত্রীর মৃত্যুর আইনি প্রতিকার কী?

আশিক আহমেদ
 | প্রকাশিত : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৪৫

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীর মৃত্যুর ঘটনায় উঠেছে বিচারের দাবি। বিক্ষুব্ধ ছাত্রী-অভিভাবকদের অভিযোগ, এই ঘটনায় ব্যবস্থা নিতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

অরিত্রীর বাবাকে ডেকে অপমান করেছিলেন স্কুলের শিক্ষকেরা। পরীক্ষার হলে মেয়ের হাতে মোবাইল ফোন পাওয়া যাওয়ার পর বাবাকে ডেকে আনা হয়েছিল। মেয়ের হয়ে ক্ষমা চাওয়া এমনকি পায়েও ধরেছেন তিনি। কিন্তু মন গলেনি শিক্ষকদের। স্কুল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

রবিবারের এই ঘটনায় পরদিন শান্তিনগরের বাসায় আত্মহত্যা করে অরিত্রী। ধারণা করা হচ্ছে, বাবার অপমান সইতে না পেরে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে যায় মেয়েটি।

এই ঘটনায় বিক্ষোভে উত্তাল সহপাঠীরা। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং স্কুল কর্তৃপক্ষ করেছে দুটি তদন্ত কমিটি। তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ এসেছে। আর শিক্ষার্থীরাও তিন দিনের কর্মসূচি দিয়েছে।

প্রশ্ন উঠছে, এই ঘটনার কি আইনি প্রতিকার সম্ভব?Ñজানতে চাইলে পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হক ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘এখানে ঘটনাটি দুভাবে হতে পারে। বিষয়টি নির্ভর করছে অরিত্রীর পরিবারের ওপর। তার পরিবার ইচ্ছা করলে একটি অপমৃত্যু মামলা করতে পারে। আবার আত্মহত্যায় প্ররোচণার মামলাও করতে পারে।’

আত্মহত্যার প্ররোচণায় দুটি ধারায় মামলা হতে পারে। অরিত্রী অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় ৩০৫ ধারায় মামলা করতে হবে। দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবন বা ১০ বছরের কারাদ-।

মানবাধিকার আইনজীবী সালমা আলী বলেন, ‘শিক্ষকেরা বিষয়টিকে অন্যভাবে ট্যাকল করতে পারতেন। বর্তমানে কোনো শিক্ষার্থী অন্যায় করলে তাকে সাজা দেওয়া যায় না। তাকে পজিটিভলি কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে ট্যাকল করতে হয়। অরিত্রীর সঙ্গে যা হয়েছে, তা সে মেনে নিতে পারেনি। তবে তদন্ত না করেই কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’

‘এখানে সবকিছু পরিবেশের ওপর নির্ভর করছে। অরিত্রীর বাবা-মায়েরও দায়িত্ব ছিল তার ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া। তার মেয়ে কাদের সঙ্গে মিশছে, রুম বন্ধ করে কী করছে, কিন্তু তারা কি সেটা করেছেন? এ কারণেই আমি বলছি, তদন্ত ছাড়া আপাতত কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। তবে এটাও সত্য, আজ পর্যন্ত আমরা কোথাও শিশুবান্ধব পরিবেশ দিতে পারিনি।’

অরিত্রীর বাবা দিলীপ অধিকারী ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘এখন পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব। তবে শুনেছি সরকারের পক্ষ থেকেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। দেখা যাক, সরকারের পক্ষ থেকে কী করে আর আমিও একটু স্বাভাবিক হই। আমার পরবর্তী করণীয় আপনাকে জানাব।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত