বিশ্বে সন্ত্রাসজনিত মৃত্যুহার কমেছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:১৯

সারা বিশ্ব চলমান সন্ত্রাসবাদ নিয়ে নাকাল হলেও ২০১৮ সালে সন্ত্রাসজনিত মৃত্যুহার কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে৷ গত বুধবার ইনস্টিটিউট ফর ইকোনোমিকস অ্যান্ড পিস থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য দেওয়া হয়৷ খবর ডয়চে ভেলের।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, সন্ত্রাসবাদের সূচকে মৃত্যুর হার তুলনামূলকভাবে কমেছে৷ বলা হয়, সন্ত্রাসবাদের দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে বিবেচিত হয়েছে ইরাক৷ এই তালিকায় যথাক্রমে শীর্ষ পাঁচে রয়েছে- আফগানিস্তান, নাইজেরিয়া, সিরিয়া ও পাকিস্তান৷ প্রতিবেদনটিতে আরো বলা হয়, ২০১৬ এবং ১৭ সালের তুলনায় ২৭ শতাংশ মৃ্ত্যু কমেছে সারা বিশ্বে৷

সন্ত্রাসেবাদের শিকার শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর আধিক্য রয়েছে৷ গতবারের মতো এবারও ইরাক ও সিরিয়া সবার প্রথমে রয়েছে৷ যদিও গত বছরের তুলনায় ইরাকে পাঁচ হাজারেরও কম লোক মারা গেছে৷ ২০১৬ সালের সঙ্গে তুলনা করে সিরিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে এক হাজার৷

এদিকে এই প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয় যে, ২০১৭ সালের মতো এবারও বিশ্বের শীর্ষ সন্ত্রাসবাদী দল ইসলামিক স্টেট তথা আইএস৷ তবে এর ক্ষমতা ও কার্যক্রম সীমিত হয়ে এসেছে ইতোমধ্যে৷ ফলে ইরাক, সিরিয়া, আফগানিস্তানে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতের সংখ্যা কমেছে৷

স্থানীয় সামরিক বাহিনী ও সহায়তাকারী আন্তর্জাতিক সামরিক বাহিনীগুলো বিভিন্নস্থানে আইএসকে দমন করতে পারায় এই সফলতা এসেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে৷

এদিকে ইউরোপে চোখে পড়বার মতো সন্ত্রাসী কার্যক্রম কমেছে৷ ইনস্টিটিউট ফর ইকোনোমিক্স অ‌্যান্ড পিস উল্লেখিত প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৭ সালের তুলনায় পরিসংখ্যান ৭৫ শতাংশ কমেছে৷

পশ্চিম ইউরোপে সন্ত্রাসজনিত কারণের হত্যার সংখ্যা গত এক বছরে আশাবাদী হওয়ার মতো কমেছে৷ ২০১৬ সালে এই সংখ্যা ছিল ১৬৮, যেখানে ২০১৭ সালে এটি ৮১ তে নেমে এসেছে৷

অন্যদিকে প্রতিবেদনটিতে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে যে, কট্টরপন্থিদের মৌলবাদী আচরণ বিশ্বে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বাড়িয়েছে৷ ২০১৪ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে এই প্রবণতা সবচেয়ে বেশি ছড়িয়ে পড়েছে৷ ইনস্টিটিউট ফর ইকোনোমিকস অ‌্যান্ড পিসের প্রতিবেদনটি বিশ্বের ১৬৩টি দেশের ওপর তৈরি করা হয়৷

(ঢাকাটাইমস/৬ডিসেম্বর/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত