ফ্রান্সে বিক্ষোভ থামাতে ৮৯ হাজার পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫৯

জ্বালানি কর বৃদ্ধির প্রস্তাব তুলে নেয়ার পরও ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসসহ বিভিন্ন এলাকায় শনিবার বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে ইয়েলো ভেস্টধারীরা। বিক্ষোভ মোকাবেলার জন্য ৮৯ হাজার পুলিশ ও কয়েক ডজন সামরিক যান মোতায়েন করা হচ্ছে। সিনেটে ফরাসি প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড ফিলিপ বক্তব্য রাখার সময় এ ঘোষণা দেন।

এর মধ্যে শুধু রাজধানী প্যারিসের বিক্ষোভ মোকাবেলার জন্য আট হাজার পুলিশ থাকবে। প্রধানমন্ত্রী ফিলিপ বলেছেন, শনিবারের সম্ভাব্য সংঘর্ষ মোকাবেলার জন্য এসব পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘কিছু লোক প্রতিবাদ করতে আসবে না বরং ভাঙচুর করতে আসবে। সে কারণে এত বেশি কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’ৎ

প্যারিসের পর্যটন কেন্দ্র, দোকান, রেস্তোরাঁ, জাদুঘর বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ। গত কয়েক দশকের মধ্যে গত শনিবার প্যারিসে ভয়াবহ বিক্ষোভের মুখোমুখি হয়েছে পুলিশ। 
গত বুধবার প্রধানমন্ত্রী এদুয়া ফিলিপ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে গত মঙ্গলবার জ্বালানি তেলের বাড়তি কর নিয়ে কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা সহিংস বিক্ষোভ থামাতে আগামী বছরের বাজেট প্রস্তাব থেকেও ওই বাড়তি করারোপের বিষয়টি বাদ দেওয়ার ঘোষণা দেন।

ফিলিপ বলেন, ‘সরকার আলোচনার জন্য প্রস্তুত, এটা দেখাতে ২০১৯-র বাজেট বিল থেকেও বাড়তি করের বিষয়টি বাদ দেওয়া হয়েছে।’ কিন্তু সরকারের বিপক্ষে ব্যাপক অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলনকারীদের মধ্যে। বিক্ষোভকারীরা অন্যান্য ইস্যুতেও এখন প্রতিবাদ করছেন।

ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, শনিবার সহিংস বিক্ষোভ থামাতে কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা জোরদার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে উগ্র ডান ও বামপন্থীরা প্যারিসে বিক্ষোভ কর্মসূচিত অংশ নেবে।

ফ্রান্সে বৈষম্য ও তেলসহ নিত্য পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ার প্রতিবাদে গত ১৭ নভেম্বর থেকে হলুদ জ্যাকেটধারীদের বিক্ষোভ চলে আসছে। গত সপ্তাহে প্যারিসে বিশাল বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয় এবং সেখানে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের বড় রকমের সংঘর্ষ হয়েছে। এ পর্যন্ত বিক্ষোভ-সংঘর্ষে ফ্রান্সে চারজন নিহত ও কয়েকশ ব্যক্তি আহত হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/৭ডিসেম্বর/এসআই)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত