জয় দিয়ে বছর শেষ করতে চান মাশরাফি

হিমু আক্তার, সিলেট থেকে
| আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৩১ | প্রকাশিত : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:২৪

সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে আগামীকাল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলতি বছরের শেষ ওয়ানডে খেলতে নামছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ১-১ সমতা বিরাজ করায় সিরিজ নিশ্চিত করতে এই ম্যাচে টাইগারদের জন্য জয় অপরিহার্য। শুক্রবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা জানিয়েছেন, জয় দিয়েই বছরের শেষটা রাঙাতে চান।

বছরের শুরুতে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কা আর জিম্বাবুয়েকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ফাইনালে লঙ্কানদের কাছে হেরে শিরোপা বঞ্চিত হয় তারা। এরপর শ্রীলঙ্কার মাটিতে ভারতকে নিয়ে আরেকটি ত্রিদেশীয় টি- টোয়েন্টি সিরিজে অংশ নেয় বাংলাদেশ। দারুণ খেলে ফাইনালে ওঠেও যায় তারা। কিন্তু শেষ ওভারে ভারতের কাছে হার নামতে হয় সাকিবদের। আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপের ফাইনালেও এই ভারতের কাছেই হেরে গিয়েছিল টাইগাররা। 

এই তিনটি ফাইনাল ছাড়া রঙিন পোশাকে বছরটা ভালোই কেটেছে বাংলাদেশের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে তারা। কিছুদিন আগে জিম্বাবুয়েকে করেছে হোয়াইটওয়াশ। এবার ঘরের মাঠে ক্যারিবীয়দের হারিয়ে আরেকটি সাফল্যগাঁথা রচনা করতে মুখিয়ে মাশরাফি ব্রিগেড। গতকাল সংবাদ-সম্মেলনে এসে মাশরাফি বলেন, ‘এ বছরের জয়ের পরিসংখ্যান বেশ ভালো। জয় দিয়ে শেষ করতে পারলে খুব ভালো হবে। পাশাপাশি বড় একটা টুর্নামেন্ট জয়ের সুযোগ ছিল। বছরের শুরুতেও একটা ত্রিদেশীয় সিরিজ হেরেছি। এছাড়া সব মিলিয়ে আমার কাছে মনে হয় ওয়ানডে ফরম্যাট বেশ ভালো গিয়েছে। শেষটাও জয়ের মাঝে থাকতে পারলে ভালো হবে।’

তাছাড়া চলতি সিরিজটি আগামী ২০১৯ বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতেও সহায়ক ভূমিকা রাখছে। সিরিজ জয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেছেন, ‘এ ম্যাচটা জিততে পারলে পরবর্তী সিরিজে আত্মবিশ্বাস ভালো থাকবে। যেটা টি- টোয়েন্টিতেও অনেক সাহায্য করবে। পরবর্তীতে নিউজিল্যান্ড সফর আছে। যদিও ফরম্যাট আলাদা। কিন্তু আত্মবিশ্বাস তৈরি হয় জয়-পরাজয়ের ওপর ভিত্তি করেই। তাই আত্মবিশ্বাসটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।’

জয়ের জন্য ইতিবাচক ক্রিকেট খেলতে হবে বলে মনে করছেন মাশরাফি। সিরিজ জিততে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে। বাংলাদেশকেও তাই সেরাটা দিতে হবে বলে জানালেন অধিনায়ক। তবে সিলেটের ভেন্যুতে টেস্ট আর টি-টোয়েন্টির অভিষেকে হার দেখেছিল বাংলাদেশ। অতীত রেকর্ড টাইগারদের মানসিকতায় কোনো প্রভাব ফেলবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেছেন, ‘এই মাঠে আগে কি হয়েছে সেটা ভেবে মাঠে নামলে আরও খারাপ হবে। কাল আমাদের নতুন ম্যাচ। নতুন চ্যালেঞ্জ। খুব ব্যাকফুটে আছি তাও না। ১-১ সমতায় আছে। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ। এটা এমন না যে আমাদের সব কিছু হারিয়ে যাচ্ছে। ইতিবাচক খেলতে হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে আপনি প্রত্যাশা করবেন ওরা সেরা ক্রিকেট খেলবে কালকে। আমাদেরকেও বেস্ট ক্রিকেট খেলতে হবে।’

আজকের ম্যাচের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ সংখ্যক ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দেয়ার রেকর্ডটি নিজের করে নেবেন মাশরাফি। গত ম্যাচে সাবেক অধিনাক হাবিবুল বাশারের পাশে নজের নাম বসিয়েছিলেন। দেশকে ৬৯টি ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়েছেন বাশার। এই প্রসঙ্গে মাশরাফির অনুভুতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শুরুতে যেমন আশা করেছিলাম তেমনটা হয়নি। দু’বার অধিনায়কত্ব পেয়েছি। শুরুতে পাঁচ ম্যাচ পর ইনজুরিতে পড়ে গিয়েছি। আমি ইনজুরিতে পড়ে টিম থেকে বাদও পড়েছি। তাই অধিনায়কত্ব আমার চিন্তায় ছিল না। আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল বাংলাদেশের হয়ে ক্রিকেট খেলা।’

মাশরাফি যোগ করেন, ‘পরের বার যখন অধিনায়কত্ব পেয়েছিলাম তারপর থেকে অনেক কিছু আমি ভাবিনি।  চলতে থাকুক যতদিন চলে- এভাবেই চিন্তা করেছি। এভাবে প্রায় চার বছর হতে যাচ্ছে। এটা আমার এবং আমার পরিবারের জন্য খুব গর্বের ব্যাপার। বাংলাদেশ দলের দীর্ঘ সময় অধিনায়কত্ব করতে পেরেছি। কাল যদি মাঠে নামতে পারি ওয়ানডে ফরম্যাটে সবথেকে বেশি ম্যাচ অধিনায়কত্ব করার সুযোগ হবে। অবশ্যই এটা একটা দারুণ অনুভুতি। এই দলে ১১ জন পারফর্মার আছে, তাদের একজন সদস্য হয়ে থাকাও কিন্তু বিরাট গর্বের ব্যাপার।’

(ঢাকাটাইমস/১৩ ডিসেম্বর/এইচএ/এবিএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত