উন্নয়নের কলা দেখাচ্ছে আ.লীগ: সরোয়ার

বরিশাল প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৫

বরিশাল-৫ আসনের বিএনপি প্রার্থী মজিবর রহমান সরোয়ার মতবিনিময় সভায় বলেছেন, ‘বরিশাল সিটি নির্বাচনে ধানের শীষের পরাজয় হয়নি। নির্বাচনে আ’লীগ বাইরে থেকে লোক এনে বরিশাল নগরবাসীর ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে নিজেদের ‘উলঙ্গ’ করেছে।

তারা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে আর বহিরাগতদের দিয়ে কেন্দ্র দখল করে লুটপাটের ভোটের নির্বাচন করেছে। কথায় কথায় আ’লীগ নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দল বলে দাবি করেন। আইউব খানের একনায়কতন্ত্র ক্ষমতার হাত থেকে গণতন্ত্র উদ্ধার করার জন্য এদেশের জনসাধারণ মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে স্বাধীনতার মাধ্যমে গণতন্ত্র উদ্ধার করেছিল।

আজ সেই আ.লীগ ক্ষমতা কুক্ষিগত করার জন্য সাধারণ মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করে মানুষকে উন্নয়নের ‘কলা’ দেখাচ্ছে। তারা যদি এতই উন্নয়ন করে থাকেন তাহলে সাধারণ মানুষকে কেন ভোট দিতে দিচ্ছেন কেন? ’

বৃহস্পতিবার শহীদ আ. রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবে বরিশাল মহানগর বিএনপি আয়োজনে জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে বরিশাল মহানগর ও কোতয়ালি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা উপলক্ষে মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্বের বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

সরোয়ার আরও বলেন, ‘আজ আ’লীগ ভোটের জন্য পুলিশ নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। তারা পুলিশের দেয়া ভোটে পুনরায় ক্ষমতায় আসার জন্য বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরকে গায়েবি মামলা দিয়ে হয়রানিসহ আমাদের গ্রেপ্তার করে জেলে রেখে খালি আরেকটি ১৪ জানুয়ারির নির্বাচনের স্বপ্ন দেখছেন।’

মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, ‘সরকারের বড় উন্নয়ন হচ্ছে ২ কোটি ৩০ লক্ষ শিক্ষিত যুবক বেকার জীবন যাপন করা। আজ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় দণ্ডিত করে নির্বাচনের বাইরে রেখে তারা পরিবারতন্ত্র কায়েম করার কাজে লিপ্ত হয়ে পড়েছে।’

আ’লীগ গণতন্ত্রকামী দল হতে পারে না তারা গণতন্ত্র ধ্বংসকারী দল উল্লেখ করে বলেন, ‘একটি দল স্বাধীনতার পর থেকেই ক্ষমতা আগলে রাখার জন্যই মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করার কাজে জড়িয়ে পড়েছিল। আগামী ৩০ ডিসেম্বর জনসাধারণের ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে ধানের শীষের বিজয়ের মাধ্যমে দেশের মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেয়া হবে।’

(ঢাকাটাইমস/১৩ডিসেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত