ভোজন-রসিকদের প্রিয় এখন খিলগাঁও তালতলা

সায়েরা সামসিয়া
 | প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:১৯

উদরপূর্তিতে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের ভূতের আড্ডা নামক স্থান টি ফুডিজদের জন্য একটি পছন্দের আড্ডার জায়গা হয়ে উঠেছে। ভোজনরসিকদের জন্য খিলগাঁও তালতলা পরিচিত একটি নাম। তালতলাকে রেস্টুরেন্টপাড়াও বলা যায়। কেননা প্রশস্ত রাস্তার দুইপাশেই রয়েছে নানা ধরনের নানা নামের শতাধিক রেস্টুরেন্ট। রয়েছে ভ্রাম্যমাণ ফুডভ্যানও। মজার সব স্ট্রিটফুডের জন্য সেখানেও লেগে থাকে ভিড়। বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই রাস্তাটি জমজমাট থাকে। ছুটির দিনগুলোতে নামে মানুষের ঢল।

ছুটির দিনে প্রিয়জনের সঙ্গে একটু ভালো সময় পার করতে ঢাকার বিভিন্ন প্রান্তের অনেকেই আসেন এখানে। ফুড ব্যাংকে ভালো রিভিউ পাওয়া বেশ কিছু নামকরা রেস্টুরেন্ট আছে এই স্থানে। এগুলোর মধ্যে দিল্লি দরবার রেস্টুরেন্ট, বেইলি পিঠাঘর, এফএফসি, স্টার চিকেন, এমএফ জি, আমেরিকান বার্গার, বেসিলকো, ক্যাফে কাঠমান্ডু, ক্যাফে রেডচিলি, স্টার বার্গার, কফি লাইমডটকম, লাফিসতা, হেল’স চিকেন, এমএল বার্গার, ফ্লেভার স্ট্রিট, ব্রেড অ্যান্ড বিয়ন্ড, এক কাপ চা, আপন কপি হাউস, বন এপিটিট, ভূতের আড্ডা, ফ্যান্টাসিয়া ফুড, স্যালুব্রে মেক্সিকান ট্যাকে, গলপিয়া বার্গার, ম্যাংগো টি, ক্যাফে চেরি ড্রপস, অলিভারস রেস্টুরেন্ট, এপেলিয়ানো, ট্রেডিশনাল বিডি, পপইয়ার্স, ঠা-া গরম, সাব লাভারস, প্রেসলি দ্য বেকার, ফুড ক্রাফট, খাদক ডটকম, পেটুক ও খাদক, চিপ অ্যান্ড ট্রিপ, চিকেন, বিএফসি, পেটুক, শর্মা রেস্টুরেন্ট কিং, ব্লুমেন, রয়েল অর্চিড, টিউন অ্যান্ড বাইট, কমিক ক্যাফে, কাবাব ইন্ডাস্ট্রি ও আপন কফিশপ বেশি জনপ্রিয়।

ঢাকায় প্রথম কোল্ড কফি এনেছিল আপন কফি হাউস। কফির নতুন ধরনের সংস্করণটি বড়-ছোট সবার-ই সমানভাবে পছন্দ হয়। আপন কফি হাউসে দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ আসেন কফির স্বাদ নিতে। 

খাবারের সঙ্গে সঙ্গে মিউজিক শোনার ব্যবস্থা রয়েছে টিউন অ্যান্ড বাইটে। সন্ধ্যার পর থেকে চলে লাইভ মিউজিক, এর সঙ্গে সম্পর্ক রেখে খাবারগুলোরও নামকরণ। এ রেস্টুরেন্টের জ্যাজ লাভার সেট, তেইপেই চিকেন, পাস্তা মার্লি ইত্যাদি বেশ জনপ্রিয়।

দুটি ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্টও আছে। উপমহাদেশীয় খাবারগুলোর স্বাদ নিতে অনেকে আসেন তালতলার প্রথম ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্ট অঙ্গন রেস্টুরেন্টে। এর মোরগ-ই-আকবর খাবারটি বেশ জনপ্রিয়। বড় এক পিতলের থালায় পরিবেশন করা হয় এই বিরিয়ানিটি, সঙ্গে থাকে আস্ত মুরগি। আছে নান, হায়দ্রাবাদি বিরিয়ানি, গুলাব জামুন ও জিরা পানিসহ আরও অনেক কিছুই।

বিয়েবাড়ির দাওয়াতের স্বাদ দিতে রিজিক রেস্টুরেন্টে পাওয়া যাচ্ছে পোলাও, রোস্ট, কাবাব, সবজি, গরুসহ সব আইটেম। শাহী ভোজ নামে পরিচিত এই আইটেমগুলো।

বাফে খেতে চাইলে আছে বেশ কিছু রেস্তোরাঁ। তালতলার প্রথম বাফে শুরু হয়েছে বাঙ্কার্স রেস্টুরেন্টটিতে। ১৫ থেকে ৩০ ধরনের আইটেম আছে তাদের মেন্যুতে। দামটা বেশ সাশ্রয়ী, তাই ভিড়টাও এখানে বেশি। 

স্কুল-কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই এখানকার মূল গ্রাহক। আশপাশে বেশ কয়েকটি স্কুল-কলেজ থাকায় এবং দাম সাশ্রয়ী হওয়ায় তরণ-তরুণীদের ভিড় থাকে অপেক্ষাকৃত বেশি।

সরেজমিন দেখা যায়, রেস্টুরেন্টের ভেতরে মানুষের যেমন ভিড়, অন্যদিকে বাইরে রাস্তার দুপাশে ভ্রাম্যমাণ ফাস্টফুডের দোকানগুলোতেও ভিড়।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সানজিদা হোসেন বলেন, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেয়ার নির্ঝঞ্ঝাট একটি জায়গা এটি। এখানে সব ভদ্রঘরের ছেলেমেয়েরা আসে। কোনো ঝামেলা ছাড়াই দীর্ঘ সময় আড্ডা দেয়া যায় এখানে।

আরেক শিক্ষার্থী ফাহাদ বলেন, ‘ঢাকার কয়েকটি জায়গায় আড্ডা দেই। তবে এই জায়গাটি সবচেয়ে প্রিয়। এখানকার পরিবেশ বন্ধুবৎসল। এখানে আড্ডা দিতে এলেই মন ভালো হয়ে যায়।’

তাছাড়া পরিবেশ ভালো হওয়ায় প্রেমিক-প্রেমিকা যুগলদের জন্যও আদর্শ একটি স্থান হয়ে উঠেছে।

ছুটির দিনগুলোতে পরিবার-পরিজন নিয়েও খেতে আসেন অনেকেই। ক্রেতার ঢলে দম ফেলার সুযোগ পান না এখানকার রেস্টুরেন্ট কর্মীরা। 

ক্যাফে রেডচিলির ম্যানেজার কামরুল হোসেন বলেন, গত পাঁচ বছর ধরেই এই জায়গাটা জমজমাট হয়েছে বেশি। দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত কমবয়সী ছেলেমেয়েদেরই বেশি দেখা যায়।

গোল্ডেন গেট রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার মিজানুর রহমান মিজান জানান, এখানে চাইনিজ, ইটালিয়ান, আমেরিকান, থাই, মেক্সিকান, ইন্ডিয়ান, বাংলাসহ সব ধরনের খাবারের আইটেম পাওয়া যায়। সপ্তাহের বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার খুব বেশি চাপ থাকে। বিশেষ বিশেষ দিনগুলোতে দম ফেলার ফুরসত থাকে না। অন্য দিনগুলোতেও ভালো বিক্রি হয়। বিশেষ করে ইউনিভার্সিটির ছেলেমেয়েরা আড্ডা দিতে এখানে চলে আসেন।

বেসমেন্ট থেকে শুরু করে রুফটপ পর্যন্ত পাশাপাশি অনেকগুলো রেস্টুরেন্টের অবস্থান এখানে। জনপ্রিয় এই রেস্টুরেন্টগুলোর যাত্রা শুরু হয়েছে খুব বেশিদিন আগে নয়। রঙিন বর্ণচ্ছটার ডেকোরেশন, ভালো মানের সাশ্রয়ী খাবারের জন্য জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে নগরীর এই এলাকাটি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :