‘খামোশ, চিনে রাখব’, জামায়াত নিয়ে প্রশ্নে কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:১১ | প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৩৫

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে সম্পৃক্ততা নিয়ে প্রশ্নে ক্ষেপলেন ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন। তিনি ‍প্রশ্নকর্তা সাংবাদিককে হুমকির সুরে বলেছেন, তাকে চিনে রাখবেন।

শুক্রবার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের শেষ লগ্নে হত্যা করা বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে যান ড. কামাল। এ সময় এই ঘটনা ঘটে।

একই মার্কায় ভোট করা জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে ড. কামালের কাছে জানতে চেয়েছিলেন একজন সাংবাদিক। তিনি বলেন, ‘জামায়াতের বিষয়ে আপনাদের সবশেষ অবস্থান কী? তারা আর আপনারা তো একই মার্কায় নির্বাচন করছেন।’

জবাবে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা হৈ চৈ শুরু করেন। এর মধ্যে ড. কামাল বলেন, ‘প্রশ্নই উঠে না, প্রশ্নই উঠে না। কত পয়সা পেয়েছেন এই প্রশ্নগুলো করতে? চিনে রাখব, চিনে রাখব। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’

এরপরও গণমাধ্যমে কর্মীরা প্রশ্ন করে যেতে থাকলে গণফোরাম সভাপতি ধমক দিয়ে কামাল বলেন, ‘শহীদদের কথা চিন্তা করো। হে হ হে হে করছ। এই মুহূর্তে, শহীদদের কথা চিন্তুা করো।’

-‘শহীদ পরিবারের সন্তানদের কথা এই যে আপনারা কেন স্বাধীনতাবিরোধীদের নিয়ে রাজনীতি করছেন?’

এই প্রশ্ন শুনে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠেন ড. কামাল। ক্ষেপে গিয়ে বলেন, ‘চুপ করো।’

তোমার নাম কী?-প্রশ্নকর্তাকে পাল্টা প্রশ্ন করেন ড. কামাল।

ওই সাংবাদিক নাম বলার পর পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘কোন পত্রিকার?’

-‘যমুনা টেলিভিশন।’

‘যমুনা টেলিভিশন, চিনে রাখব।’

ঐক্যফ্রন্টের শরিক বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র সংঘের খুনি বাহিনী আলবদর এই হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিল। আলবদর বাহিনীর চার শীর্ষ নেতা মতিউর রহমান নিজামী, আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ, মীর কাসেম আলী, মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। আরেক নেতা এটিএম আজহারুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে।

এবারের নির্বাচনে কামাল হোসেনের গণফোরাম এবং ঐক্যফ্রন্টে তার সব শরিকের পাশাপাশি জামায়াতও একই প্রতীকে ভোট করছে। আর বিএনপির দুই জোট সমন্বয় করেই অংশ নিচ্ছে নির্বাচনে।

তবে কামাল হোসেন এবং তার শরিক দলের নেতারা বরাবর বলে আসছেন, তাদের জোট জামায়াতের সঙ্গে নয়, বিএনপির সঙ্গে। কিন্তু এ নিয়ে গণমাধ্যমের প্রশ্নের মুখোমুখি হতে চান না তারা। বরাবর এড়িয়ে চলছেন।

জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন করার আগে ড. কামাল অবশ্য কথা বলেন শান্তভাবে। বলেন, ‘স্বাধীনতার স্বপ্নকে সামনে রেখে, স্বাধীনতার আদর্শকে সামনে রেখে আমরা সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন অবশ্যই করব। যারা এর বিরুদ্ধে কাজ করছে, যারা লোভ লালসা দিয়ে লুটপাট করছে, তাদের হাত থেকে আমরা দেশকে অবশ্যই মুক্ত করব। আমরা জয়ী হবো। বাংলাদেশের জয় হোক, জনগণের জয় হোক।’

এই বক্তব্য দেওয়ার পর ড. কামাল স্মৃতিসৌধ থেকে বের হওয়ার পর তার গাড়িতে হামলা হয় বলে অভিযোগ করছে ঐক্যফ্রন্ট। এতে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

এ ঘটনা নিয়ে আজ বেলা তিনটায় ঐক্যফ্রন্টের অস্থায়ী কার্যালয় পুরানাপল্টনের জামান টাওয়ারে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলবেন কামাল হোসেন।

ঢাকাটাইমস/১৪ডিসেম্বর/এসএস/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :