দুঃখ প্রকাশ করলেন ড. কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৪৮ | প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:১৩

জামায়াত প্রশ্নে সাংবাদিকদের উপর ক্ষিপ্ত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। শুক্রবার রাতে এক বিবৃতির মাধ্যমে তিনি বলেন, ‘বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে গিয়েছিলাম শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে। ওই পরিস্থিতে একাধিকবার ঐক্যফ্রন্টে জামায়াতের সম্পৃক্ততা নিয়ে প্রশ্ন করায় খুব খারাপ লেগেছিল।’

তিনি বলেন, ‘আমি প্রশ্নকর্তাকে থামানোর চেষ্টা করেছিলাম। তার পরও ভিড়ের মধ্য থেকে অনবরত ‘জামায়াত জামায়াত’ শব্দ শুনতে পাই। আমি বলেছিলাম, বুদ্ধিজীবী দিবস গভীর অনুভূতির বিষয়। এই দিনে জামায়াত বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। কিন্তু বারবার একই প্রশ্ন আসে। তারপরও আমার বক্তব্য কাউকে আহত করে থাকলে আমি আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।’

ঐক্যফ্রন্টের এই শীর্ষ নেতা বলেন, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে তার কয়েকজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। ১৯৭২-৭৩ সালে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় স্বাধীনতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জন্য প্রণীত আইনগুলোর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারা তার কাছে বিশেষ আবেগ ও অনুভূতির বিষয়। এছাড়া সারাজীবন তিনি সাংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে শামিল থেকেছেন বলেও মন্তব্য করেন।

শুক্রবার শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে গেলে ঐক্যফ্রন্টে স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর সম্পৃক্ততা নিয়ে ড. কামালকে প্রশ্ন করেন এক সাংবাদিক। এতে ক্ষেপে যান তিনি। ‍প্রশ্নকর্তা সাংবাদিককে তিনি চিনে রাখার হুমকি দেন।

যমুনা টেলিভিশনের ওই সাংবাদিকের প্রশ্ন ছিল, ‘জামায়াতের বিষয়ে আপনাদের সবশেষ অবস্থান কী? তারা আর আপনারা তো একই মার্কায় নির্বাচন করছেন।’

জবাবে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা হৈ চৈ শুরু করেন। পরে ড. কামাল বলেন, ‘প্রশ্নই উঠে না, প্রশ্নই উঠে না। কত পয়সা পেয়েছেন এই প্রশ্নগুলো করতে? চিনে রাখব, চিনে রাখব। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’

এরপরও গণমাধ্যম কর্মীরা অনবরত প্রশ্ন করতে থাকলে গণফোরাম সভাপতি ধমক দিয়ে বলেন, ‘শহীদদের কথা চিন্তা করো। হে হ হে হে করছো। এই মুহূর্তে, শহীদদের কথা চিন্তা করো।’

ঢাকা টাইমস/১৫ ডিসেম্বর/টিএ/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত