ফরিদপুর-৩

ভাগ্য উন্নয়নের প্রতীক নৌকা: এলজিআরডি মন্ত্রী

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:২১ | প্রকাশিত : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:১৩

জমে উঠেছে ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। পথসভা, কর্মীসভা ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীসহ আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ফরিদপুর জেলার গুরুত্বপূর্ণ এই আসনটিতে এবারও আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি আসনটির বর্তমান সংসদ সদস্য। সরকারের স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় এবং প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী।  

শনিবার সকাল থেকেই একের পর এক নির্বাচনী পথসভায় অংশ নিচ্ছেন নৌকার প্রার্থী খন্দকার মোশাররফ। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আরিফুর রহমান দোলন। এ ছাড়া জেলা ও শহর আওয়ামী লীগ এবং যুবলীগের নেতাকর্মীরাও অংশ নিচ্ছেন নির্বাচনী প্রচারণায়। 

শহরের বুনিয়াদী বিদ্যালয় মাঠে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এক নির্বাচনী সভার আয়োজন করা হয়। সভায় বর্তমান সরকারের উন্নয়নের তথ্য তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের প্রতীক নৌকা। শান্তির প্রতীক নৌকা। এই নৌকাই পারে দেশের উন্নয়নকে সর্বোচ্চ জায়গায় নিয়ে যেতে। তাই ৩০ ডিসেম্বর ভোট দিয়ে নৌকা প্রতীককে জয়ী করতে হবে।’ 

বর্তমান সরকারের সময়ে ফরিদপুরের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় এলে ফরিদপুর বিভাগ হবে। সিটি করপোরেশন হবে। উচ্চতর শিক্ষার জন্য বিশ^বিদ্যালয় হবে।’ 

তিনি বলেন, ‘একসময় ফরিদপুর সন্ত্রাসের জনপদ ছিল। মানুষের নিরাপত্তা ছিল না। মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারতো না।  আমাকে আপনারা সংসদ সদস্য নির্বাচিত করার পর সেই চিত্র বদলে গেছে। গত ১০ বছরে ফরিদপুরের মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পেরেছে। সন্ত্রাস কমেছে। রাজনৈতিক হত্যাকা- কমেছে। আগামীতেও এই ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ করে দেবেন, এই প্রত্যাশা করছি।’

গত ১১ ডিসেম্বর ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ নেতা খুন হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী বলেন, ‘ গোলডাঙ্গীতে আওয়ামী লীগের নেতাকে বিএনপির কর্মীরা হত্যা করেছে। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে মানুষের শান্তি আর থাকবে না। কেউ শান্তিতে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারবে না। নৌকায় ভোট দিলে আমরা সবাই শান্তিতে থাকতে পারব।’ 

সভায় বিশেষ অতিথি কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান দোলন বলেন,  ‘বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আছেন বলেই পদ্মা সেতুসহ বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। স্বল্প আয় থেকে আমরা মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হতে চলেছি। এ দেশকে এগিয়ে নিতে হলে নৌকা প্রতীকের বিকল্প নেই।’ 

মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সময়ে ফরিদপুরের উন্নয়নের তথ্য তুলে ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দোলন বলেন, ‘আপনাদের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন গত দশ বছরে ফরিদপুরে যে উন্নয়ন কাজ করেছেন অতীতের কেউ তা করতে পারেননি। এই ধারাকে অব্যাহত রাখতে তাকেই আবার বিজয়ী করতে হবে।’

খন্দকার মোশাররফ হোসেন কর্মী অন্তপ্রাণ মানুষ উল্লেখ করে দোলন বলেন, ‘গত দশ বছর তিনি যেভাবে ফরিদপুরবাসীর পাশে থেকেছেন, তা অন্য কেউ পারেনি। আপনাদের খোঁজ নিতে প্রতি সপ্তাহে ঢাকা থেকে ফরিদপুরে ছুটে এসেছেন। রাষ্ট্রীয় অনেক ব্যস্ততা থাকা সত্ত্বেও তিনি আপনাদের কথা কখনো ভোলেননি। এ রকম একজন কর্মবীর ভালো মানুষকে আপনারা আবারও বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন, এটাই আপনাদের কাছে একমাত্র চাওয়া।’  

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নূর ইসলাম মোল্লার সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তৃতা করেন, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী,  সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, আওয়ামী লীগ নেতা আক্কাস হোসেন, হযরত আলী পাট্টাদার, ফাহাদ বিন ওয়াজেদ ফাইন প্রমুখ।

পরে এলজিআরডিমন্ত্রী শোভারামপুর বাজারে আরেকটি নির্বাচনী সভায় অংশ নেন। 

গত ১৩ ডিসেম্বর ফরিদপুরের অম্বিকাপুরে কোমরপুর আব্দুল আজিজ ইন্সটিটিউশন মাঠে আয়োজিত নির্বাচনী পথসভা করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি নৌকার প্রার্থী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের জন্য ভোট চান।

(ঢাকাটাইমস/ ১৫ ডিসেম্বর/ প্রতিনিধি/এইচএফ) 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :