ড. কামালের জন্য দুঃখ হয় কাদেরের

নোয়াখালী প্রতিবেদক
| আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:২১ | প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:২৪

ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের জন্য দুঃখ হয় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের। বলেছেন, ‘তিনি জামায়াত, দ-প্রাপ্ত আসামি, হাওয়া ভবনের যুবরাজ তারেক রহমানের নির্দেশে ঐক্যফন্ট করেছেন।’

রবিবার দুপুরে নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে বসুরহাট এএইচসি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা। বিজয় দিবস উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন।

কাদের বলেন, ‘আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশকে পাকিস্তানি ধারায় ফিরিয়ে নেওয়ার চক্রান্ত করা হচ্ছে। আর পরাজিত শক্তিকে নেতৃত্ব দিচ্ছে বিএনপি। বিএনপির মুক্তিযুদ্ধের মুখোশ খসে পড়েছে। মুখে যতই গণতন্ত্রের কথা বলুক না কেন বাস্তবে তারা মুক্তিযুদ্ধের অপশক্তিকে সহযোগিতা করছে।’ 

‘৭১ এর পরাজিত শক্তি এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ছদ্মবেশী মুক্তিযোদ্ধা, ছদ্মবেশী গণতান্ত্রিক। যারা আজকে নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশকে পাকিস্তানি ধারায় ফিরিয়ে নেয়ার চক্রান্ত করছে।’

‘৭১ এ যাদেরকে আমরা পরাজিত করেছি, সে পরাজিত শক্তিকে আজকে নেতৃত্ব দিচ্ছে বিএনপি। তারা মুখে যতই মুক্তিযুদ্ধের কথা বলুক, বাস্তবতা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তিকে পৃষ্ঠপোষকতা করছে আর জঙ্গিবাদকে মদদ দিচ্ছে।’

ঐক্যফ্রন্টের পাশাপাশি নোয়াখালী-৫ আসনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মওদুদ আহমদের ও সমালোচনা করেন কাদের। বলেন, ‘আপনার বেলা শেষ। ২২ বছরে এ এলাকাকে অন্ধকারে ডুবিয়ে রেখে ছিলেন। আপনাকে ভোট দিয়ে জনগণ আবার অন্ধকার ফিরিয়ে আনতে চায় না। মওদুদ আহমদকে কেউ বিশ্বাস করে না। তার প্রতিশ্রুতিকে মানুষ ভুয়া মনে করে। তিনি উন্নয়নের নামে মিথ্যাচারে ভাঙা রেকর্ড বাজাচ্ছেন।’
 
‘আমার কাজ গ্রামে গ্রামে, মাকড়শার জালের মত রাস্তা। অনেকের বাড়ির দরজাও পাকা হয়েছে। এখানে আগে বিদ্যুৎ ছিল না, এখন ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে গেছে। মওদুদ আহমদের আমলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১৬ ঘণ্টা লোডশেডিং ছিল। সে অন্ধকারে আপনারা আবার ফিরে যেতে চান?’- ভোটারদের বলেন কাদের। 

‘আমি ১২ বছরে যা করেছি মওদুদ কি ২২ বছরে তা করতে পেরেছেন? আমি নির্বাচিত হলে, কোােন নারী কাজ ছাড়া থাকবে না। নারী ও তরুণদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব। কোন তরুণ বেকার থাকবে না। তাদেরকে কাজে লাগাব। দারিদ্র্যকে যাদুঘরে পাঠাব, বেকারত্বকেও যাদুঘরে পাঠাব।’

বাংলাদেশের উন্নয়ন এগিয়ে নিতে হলে আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার বিকল্প নেই বলেও মনে করেন কাদের। বলেন, “পাকিস্তানের বুদ্ধিজীবিরা টিভিতে বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে বলে, ‘আমাদেরকে বাংলাদেশ বানাও, একজন শেখ হাসিনা দাও। আর্থ সামজিক সূচকে পাকিস্তান বাংলাদেশের অনেক পেছনে রয়েছে। অনেক কিছুরই সূচকে ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা আমাদের অনেক পেছনে রয়েছে। যদি উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে চান, তাহলে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতে হবে।’

ঢাকাটাইমস/১৬ডিসেম্বর/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :