বাঘাইছড়িতে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ২১

রাঙামাটি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৩১

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২১ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। 

আজ রবিবার সকাল ৯টার দিকে বাঘাইছড়ি পৌরসভার চৌমুহনীতে এ সংঘর্ষ হয়। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল আটটার দিকে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপজেলা পরিষদ এলাকায় শহীদ মিনারে গিয়ে বিজয় দিবসের ফুল দেন। ফেরার পথে মিছিল নিয়ে চৌমুহনীতে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে উস্কানিমূলক স্লোগান দেয়। বিএনপির কর্মীরা এর প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর হামলা চালানো হয় মিছিল থেকে। পরে পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি ওমর আলী বলেন, ‘বিনা উসকানিতে আওয়ামী লীগ ও তাদের অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা আমাদের অফিসে এসে হামলা করেন। এ সময় আমরা শহীদ মিনারে ফুল দিতে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম।’ তিনি দাবি করেন, তাদের ওপর অতর্কিত হামলায় বাঘাইছড়ি পৌর বিএনপির সভাপতি নিজাম উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির সভাপতি জসিম উদ্দিন, পৌর যুবদলের সহ-সভাপতি আবদুর রাজ্জাকসহ ১৬ জন নেতাকর্মী আহত হন। 

আওয়ামী লীগ দাবি করছে, বিএনপির নেতাকর্মীরা তাদের এক কর্মীকে মারধর ও পরে হামলা করেছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘শহীদ মিনারে ফুল দিতে গিয়ে রিপন চাকমা নামের একজন ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধর করে ছাত্রদলের কর্মীরা। এর প্রতিবাদে চৌমুহনীতে ছাত্রলীগের কর্মীরা মিছিল করে। সেখানে বিএনপির লোকেরা ইটপাটকেল ছুড়লে ছাত্রলীগের কর্মীরা তা প্রতিহত করে।’ এ সময় ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের ৬-৭ জন কর্মী আহত হন বলে জানান তিনি।

বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তত্ত্বাবধায়ক নুয়েন খীসা বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় তারা ১৭ জনকে চিকিৎসা দিয়েছেন। কয়েকজন ভর্তি আছেন। দুজনের অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাদের খাগড়াছড়িতে পাঠানো হয়েছে।

বাঘাইছড়ি থানার ওসি এম এ মনজুরুল বলেন, উত্তেজনামূুলক স্লোগানের কারণে এ সংঘর্ষ হয়েছে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। লিখিত অভিযোগ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

(ঢাকাটাইমস/১৬ডিসেম্বর/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত