৩০০ ফুট রাস্তাকে ‘মুক্তিযোদ্ধা সরণী’ করার প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:৩৬

অদূর ভবিষ্যতে দেশের আধুনিক নগরী হতে চলা রাজধানীর পূর্বাচলের ৩০০ ফুট রাস্তার নাম ‘মুক্তিযোদ্ধা সরণী’ করার প্রস্তাব দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে আমি আজ ৩০০ ফুট রাস্তা মুক্তিযোদ্ধা সরণী করার প্রস্তাব রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) কাছে রাখছি। আপনারা (মুক্তিযোদ্ধারা) সম্মতি দিলে আজ এটা পাস হবে।’ 

বিজয় দিবস উপলক্ষে রবিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র খোকন এ প্রস্তাব রাখেন। এসময় উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধারা হাত তুলে মেয়রের প্রস্তাবে সম্মতি দেন। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। 

এসময় মুক্তিযুদ্ধের সময়কার স্মৃতিচারণ করে বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করেন মেয়র। বলেন, ‘আমি তখন কিশোর ছিলাম। কিন্তু অবুঝ ছিলাম না। যারা পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে আমাদের মা বোনদের ইজ্জত তুলে দিয়েছিল; তাদের বাড়িতে, গাড়িতে লাল সবুজের পতাকা তুলে দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত করা হয়েছে। নতুন প্রজন্মের একজন সদস্য হিসেবে লজ্জায় আমার বুক ফেটে যায়।’

মেয়র আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি বিমা কোম্পানিতে চাকরি করতেন।  মাস শেষে  যে সম্মানি পেতেন তা আমার বাবা মেয়র মোহাম্মদ হানিফের হাতে তুলে দিতেন। বলতেন, হানিফ এই টাকাগুলো এক দুই তিন টাকা করে সারাদেশে আমার নেতাকর্মীদের হাতে পৌঁছে দিও। তারা আমার দল পরিচালনা করবে।’

যে মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিল বিজয়ের এই মাসে তাদের আরো সুযোগ সুবিধা দেয়ার ঘোষণা দেন সাঈদ খোকন। বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের  হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ করা হয়েছে। জুরাইন কবরস্থানে তাদের জন্য কবর সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সিটি করপোরেশনের সব সেবা সহজ করে দেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে বিদ্যুৎ পরিস্থিতির করুণ অবস্থা নিয়েও কথা বলেন মেয়র। বলেন, ‘আগে তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ছিল। এই শহরে প্রতি ঘণ্টায় লোডশেডিং হতো। সেখান থেকে আজ বিদ্যুৎ ১৮ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত হয়েছে। আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।’ তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল  মোস্তফা, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবাহুল ইসলামসহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন। সংবর্ধনায়  সেক্টর কমান্ডার, বীর মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/১৬ডিসেম্বর /আরকে /ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত