স্বাধীনতা কাপ ২০১৮

প্রথম সেমিতে আজ মুখোমুখি শেখ রাসেল-ব্রাদার্স

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫২

কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। তাদের পথ ধরে শেষ আট থেকে ছিটকে গেছে রানার্সআপ চট্টগ্রাম আবাহনীও। স্বাধীনতা কাপ তাই এবার নতুন চ্যাম্পিয়ন দেখতে যাচ্ছে। তবে সেটি পরের কথা। এখনো সেমিফাইনাল বাকি। আজ নিষ্পত্তি হবে শেষ চারের একটি ম্যাচ। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র-ব্রাদার্স ইউনিয়ন। বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল স্টেডিয়ামে ম্যাচটি মাঠে গড়াবে বিকাল সাড়ে ৪টায়।

ঘরোয়া ফুটবলের ২০১২-১৩ মৌসুমটি সোনায় মোড়ানো ছিল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের জন্য। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, ফেডারেশন কাপ ও স্বাধীনতা কাপের ট্রফি ঘরে তুলেছিল ব্লুজরা। ট্রেবল জয়ের পর শেখ রাসেল আর নিজেদের সেভাবে মেলে ধরতে পারেনি। গত মৌসুমে তারা প্রিমিয়ার লিগ শেষ করেছে ষষ্ঠ স্থানে থেকে। এবার ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালেই থেমে গেছে তাদের যাত্রা। তবে স্বাধীনতা কাপ জিততে পারলে সাফল্যের খাতায় অন্তত বলার মতো কিছু যোগ হবে সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যদের।

স্বাধীনতা কাপের ‘ডেথ গ্রুপ’ খ্যাত ‘ডি’ গ্রুপ থেকে সেমিফাইনালে নাম লিখিয়েছে শেখ রাসেল। গত দুই আসরের নকআউটে রাসেলের ‘যম’ ছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। এবার আর তাদের বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি চট্টলার দলটি। তাদের উড়িয়ে সেমিতে নাম লিখিয়েছে ২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়নরা। এখন ফাইনালে উঠে দীর্ঘদিনের শিরোপা খরা ঘোচাতে চায় দলটি। এ প্রসঙ্গে গতকাল দলীয় অধিনায়ক আশরাফুল ইসলাম রানা বলেছেন, ‘এখন আমাদের লক্ষ্য একটাই। সেমিফাইনালে এসেছি। এখন ফাইনাল খেলা। আমাদের লক্ষ্য থাকবে নিজেদের সেরাটা খেলেই ফাইনালে ওঠা।’

চলতি দলবদল মৌসুমে আফ্রিকান প্রীতির সংস্কৃতি ভেঙে প্রথমবারের মতো আফ্রিকান বর্জিত দল গড়ে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। পানামা, পেরু ও ইরাকের এক ফুটবলার ছাড়াও গোপীবাগের ক্লাবটি দলে ভেড়ায় দুজন ব্রাজিলিয়ান। দেশি-বিদেশি খেলোয়াড় মিলিয়ে ভারসাম্যপূর্ণ দল গঠন করায় ফেডারেশন কাপে তাদের নিয়ে আশাবাদী ছিল অনেকে। তবে ওই টুর্নামেন্টে সাফল্য পায়নি ব্রাদার্স। সেই আক্ষেপ তার এবার স্বাধীনতা কাপ দিয়ে ঘুচাতে চায়। 

যদিও শেষ চারের পথটা খুব একটা সহজ ছিল না ব্রাদার্সের জন্য। টুর্নামেন্টের সবচেয়ে শক্তিধর দল আবাহনীর সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে কোনোমতে ‘সি’ গ্রুপ থেকে শেষ আটে ওঠে তারা। এরপর কোয়ার্টার ফাইনালে টাইব্রেকারে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আরামবাগকে হারায়। তবে ওই দুটি ম্যাচই ফাইনালে ওঠার রসদ জোগাচ্ছে দলটিকে। গতকাল সেমিফাইনাল ম্যাচ নিয়ে ব্রাদার্স ম্যানেজার বলেছেন, ‘গ্রুপ পর্বে আমরা ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনীর সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছি। কোয়ার্টার ফাইনালে স্বাধীনতা কাপের চ্যাম্পিয়ন দল আরামবাগকে হারিয়ে দিয়েছি। ছেলেরা উজ্জীবিত আছে।’

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালে স্বাধীনতা কাপ ফুটবলের প্রথম আসর অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বিভিন্ন কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ১৯৯০ সালে আয়োজিত হয় স্বাধীনতা কাপ ফুটবলের দ্বিতীয় ও ১৯৯১ সালে তৃতীয় আসর। এরপর লম্বা বিরতি। ২০০৫ সালে অনুষ্ঠিত হয় স্বাধীনতা কাপ ফুটবলের চতুর্থ আসর। চতুর্থ আসরের পর পাঁচ বছর বিরতি দিয়ে ২০১১ সালে হয় পঞ্চম আসর। এরপর ২০১৩ সালে ষষ্ঠ, ২০১৪ সালে সপ্তম, ২০১৬ সালে অষ্টম এবং চলতি বছরেই নবম টুর্নামেন্ট।

(ঢাকাটাইমস/১৯ ডিসেম্বর/এবিএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :