বরিশালে কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে ফার্মেসি ভাঙচুরের অভিযোগ

বরিশাল ব্যুরো, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২৩:০৬ | প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৫৬

বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেলের সামনে জেলা পরিষদের মার্কেটের একটি ওষুধের দোকান দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর নেতা মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে।

শনিবার স্টল দখল চেষ্টার সময় কাউন্সিলর মজিবর ওই স্টলের লিজ গ্রহীতা শামীম হাওলাদারকে মারধর এবং তার মালিকানাধীন অপর ফার্মেসি শামীম মেডিকেল হল ভাঙচুর করেন বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী। এতে ওই ফার্মেসির আড়াই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

জানা যায়, গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি জেলা পরিষদের তহবিলে এক লাখ ২৯ হাজার ৯১০ টাকা জমা দিয়ে ২৩ নম্বর স্টলের পাশে ১১ ফুট দৈর্ঘ্য এবং ৫ ফুট প্রস্থের সিঁড়ির কোঠা ইজারা নেন শামীম হাওলাদার। পরে তিনি তার মূল দোকান ২৩ নম্বর স্টলের শামীম মেডিকেল হলের সাথে ওই সিঁড়ির কোঠা একত্র করে ব্যবসা করে আসছিলেন।

শামীম হাওলাদারের অভিযোগ, ১১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মজিবর রহমানের নেতৃত্বে বস্তির প্রায় ৫০ জন লোক হাতুরি এবং সাবল নিয়ে তার শামীম মেডিকেল হলে হামলা চালায়। বাধা দিলে মজিবর তাকে মারধর করেন। 

শামীম জানান, এ সময় মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মাহফুজুর রহমান ঘটনাস্থল অতিক্রম করছিলেন। তিনি হামলা-জটলা দেখে গাড়ি থামিয়ে বিষয়টি জানতে চান। সব জানতে পেরে কাউন্সিলর মজিবরকে ভর্ৎসনাও করেন তিনি। 

এ ঘটনায় সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহর কাছেও অভিযোগ করেন শামীম হাওলাদার। 

তবে কাউন্সিলর মজিবর রহমানের দাবি, ওই সিঁড়ির কোঠায় আগে টয়লেট ছিল। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগের ভিত্তিতে তিনি ওই টয়লেট দখল মুুক্ত করতে গিয়েছিলেন। বিষয়টি সিটি মেয়রও জানেন।

এ ব্যাপারে শামীম হাওলাদার বলেন, জেলা পরিষদের ১ নম্বর মার্কেটের ২৩ নম্বর স্টলের পাশের সিড়ির কোঠার টয়লেটের বদলে একই মার্কেটের তৃতীয় তলায় জেলা পরিষদ তাকে (শামীম) নিজ খরচে একটি টয়লেট নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি তা করেও দিয়েছেন। 

জানতে চাইলে বরিশাল কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম বলেন, ‘শামীম হাওলাদারের অভিযোগ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছে পুলিশ।’

ঢাকাটাইমস/১২জানুয়ারি/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :