সিরাজগঞ্জে তিন মাসে ১৫ জেএমবি সদস্য আটক

সিরাজগঞ্জে ৩ জেএমবি সদস্য আটক
 | প্রকাশিত : ০৪ অক্টোবর ২০১৬, ১২:৩০

গত তিন মাসে সিরাজগঞ্জ জেলা থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) ১৫ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আটক ব্যক্তিদের মধ্যে জেএমবির চারজন নারী সদস্য রয়েছে। গত জুলাই মাসে পাঁচজন, সেপ্টেম্বর মাসে সাতজনকে আটক করা হয়। আজ মঙ্গলবার নিষিদ্ধ ঘোষিত এই সংগঠনের তিন সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।  

পুলিশ জানায়, সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল এলাকা থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) তিন সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওহেদুজ্জামান জানান, সোমবার গভীর রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে জেএমবি সদস্য ওই তিন ভাইকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- সানাউল্লা (৪৮) বরকত উল্লাহ (৩০) লিয়াকত (৩৮)। তারা সদর উপজেলার শিয়ালপোল ইউনিয়নের আবু বকর সিদ্দিকির ছেলে।

আটককৃতদের থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি।

গত ২০ সেপ্টেম্বর জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে জেএমবির চার সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে ১০টি ককটেল, এক প্যাকেট গান পাউডার, চার কেজি ভাঙা কাচ, ৫ শতাধিক স্প্লিন্টার ও ৫০টি জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়।

আটক ব্যক্তিরা হলেন, সিরাজগঞ্জের উল্লাহপাড়ার জেএমবির জেলা সভাপতি মো. জয়লান আবেদিন (৫৫), কাজীপুর উপজেলার দান্দাউল গ্রামের জেএমবির জেলার শাখার ক্যাশিয়ার মো. আবু বকর সিদ্দিকি (৫০), জেএমবির সাধারণ সদস্য বোরহান উদ্দিন (২৮) ও তার ভাই ইমরান আলী (২৬)।

আটক জেএমবির সদস্যরা দীর্ঘ দিন থেকে জেলা সদস্যদের কাছ থেকে চাঁদা সংগ্রহ করে তহবিল গঠন করে আসছিল। তহবিলের টাকা দিয়ে তারা সাংগঠনিক কাজ করতো বলে দাবি করে পুলিশ।

এর আগে ১ সেপ্টেম্বর জিহাদের প্রস্তুতি এবং সদস্য সংগ্রহ করার সময় বিপুল পরিমাণ জিহাদি বইসহ জেএমবির তিন সদস্যকে আটক করা হয়। জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়ন থেকে তাদের আটক করা হয়।

এরা হলেন‒মোহনপুর চাকশা দক্ষিণপাড়া গ্রামের আবু বক্কারের ছেলে ইসরাফিল (২৪), চর মোহনপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের হাজি আনোয়ার হোসেনের ছেলে রুহুল আমিন রুহুল (৩২) এবং চরমোহনপুর উত্তরপাড়া গ্রামের পর্বত আলীর ছেলে আলমাস আলী (৩০)।

গত ২৪ জুলাই জেলা শহরের মাছুমপুর এলাকা থেকে জেএমবির চার নারী সদস্য আটক কা হয়।

তারা হলেন, সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা উপজেলার বাদুল্যাপুরের মাহবুবুর রহমানের স্ত্রী নাদিরা তাবাসসুম রানী (৩০), বগুড়ার শাহজাহানপুর উপজেলার ক্ষুদ্র ফুলকোটের মো. খালিদ হাসানের স্ত্রী হাবিবা আক্তার মিশু (১৮), এই উপজেলার পরানবাড়িয়ার সুজন আহমেদ বিজয়ের স্ত্রী রুমানা আক্তার রুমা (২১) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মোচাদহ দক্ষিণপাড়ার মামরুল ইসলাম সরদারের স্ত্রী রুনা বেগম (১৯)।

এছাড়া ১৮ জুলাই জিহাদি বই ও লিফলেটসহ জেএমবির এক সদস্যকে আটক করা হয়। আতাউল হক ওরফে বাহাদুর হোসেন (৩০) চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার মাইজভান্ডারী গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে।

তাড়াশ উপজেলার মাদ্রাসাপাড়া এলাকা থেকে জেএমবির এক সক্রিয় সদস্যকে আটক করা হয়।

সিরাজগঞ্জের ডিবি পুলিশ জানায়, গত মার্চে বগুড়ার শেরপুরে এক বাড়িতে বোমা বানাতে গিয়ে দুই জেএমবির সদস্য নিহত হন। এর মধ্যে একজন হলেন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার জামুয়া গ্রামের তরিকুল। এই তরিকুলের বোন জামাই হচ্ছেন আতাউল। তিনি আত্মগোপনে থেকে জেএমবি সদস্য সংগ্রহসহ রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপে নিয়োজিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/৪অক্টোবর/প্রতিনিধি/জেডএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত