‘জঙ্গি’ আকাশ চার্জশিটভুক্ত আসামি, পুরো পরিবার জেএমবিতে

রানা আহমেদ, সিরাজগঞ্জ থেকে
 | প্রকাশিত : ০৯ অক্টোবর ২০১৬, ১৮:২০
নিহত জঙ্গি নেতা ফরিদুল ইসলাম আকাশ

গাজীপুরের পাতারটেকে পুলিশি অভিযানে নিহত নব্য জেএমবি কমান্ডার ফরিদুল ইসলাম আকাশ সিরাজগঞ্জের চার্জশিটভুক্ত আসামি ছিলেন। সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে সন্ত্রাস দমন ও জঙ্গি কর্মকাণ্ডের মামলার অন্যতম আসামি তিনি। ওই মামলায় আদালতে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়া হয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরেই ফরিদুল ইসলাম আকাশকে খুঁজছিল পুলিশ। পুলিশের চালানো কয়েক দফা অপারেশনে বারবার অল্পের জন্য রক্ষা পান তিনি। এরপর থেকে আকাশ আর এ অঞ্চলে ফিরে আসেননি।

গতকাল শনিবার গাজীপুরের নোয়াগাঁও এলাকার পাতারটেকে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনার ক্রাইম (সিটিটিসি) অভিযানে ছয় জঙ্গির সঙ্গে নিহত হন ফরিদুল ইসলাম আকাশ। নিহত আকাশকে নব্য জেএমবির সামরিক কমান্ডার বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

এর আগে ৫ সেপ্টেম্বর সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার বরইতলী গ্রামে অভিযান চালিয়ে আকাশের মা, দুই বোনসহ আরও একজনকে আটক করে পুলিশ। তারা জেএমবির আত্মঘাতী স্কোয়াডের সদস্য বলেও দাবি করে গোয়েন্দারা। এ মামলায়ও একই পরিবারের সদস্য আকাশ পলাতক আসামি ছিলেন।  

সেই সময় আটকরা হলেন, আকাশের মা ফুলেরা খাতুন (৪৫), দুই বোন সাকিলা খাতুন (১৮), সালমা খাতুনকে (১৬) ও একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রাজিয়া বেগম (৩৫)। তবে  এ ঘটনার পর থেকে আকাশের বাবা আবু সাঈদ পলাতক।

সিরাজগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওহেদুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ধারণা করা হচ্ছে নিহত আকাশই সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার বরইতলী গ্রামের ওয়ান্টেন্ড জেএমবি নেতা ফরিদুল ইসলাম আকাশ। তবে অফিসিয়ালি এ ব্যাপারে কোনো তথ্য পাননি বলে জানান তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কাজিপুর উপজেলার গান্ধাইল ইউনিয়নের বরইতলী গ্রামের আবু সাঈদের ছেলে ফরিদুল ইসলাম আকাশ (২৫) ২০১৫ সালে সিরাজগঞ্জের পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে ডিপ্লোমা করেন।

পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ জানান, সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে ফরিদুল ইসলাম নামের এক শীর্ষ জেএমবি নেতা দীর্ঘদিন ধরেই পলাতক রয়েছেন। তার মা ও দুই বোনকে আটক করা হয়েছে। তারা জেএমবির আত্মঘাতী স্কোয়াডের সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। মূলত ফরিদুলের প্ররোচনায় তার দুই বোন ও মাসহ প্রতিবেশীরা জেএমবি কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। তার পুরো পরিবার এখন জেএমবির সঙ্গে যুক্ত।

(ঢাকাটাইমস/০৯অক্টোবর/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত