তিন বছর ধরে খোলা আকাশের নিচে পাঠদান

শওকতআলী, চাঁদপুর প্রতিনিধি
 | প্রকাশিত : ১৫ অক্টোবর ২০১৬, ১৭:৫৩

চাঁদপুরের কচুয়ায় আয়মা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিন বছর ধরে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান। বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষণাও করা হয়েছে বহুদিন আগে। শ্রেণিকক্ষের অভাবে কখনো খোলা আকাশের নিচে, কখনো ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের বারান্দার নিচে ও খোলা মাঠে চলছে শিক্ষাকার্যক্রম। এসব কারণে বিদ্যালয়টিতে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা কমছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের জানানো হলেও কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১৯৯৫ সালে কচুয়া এলাকার ব্যবসায়ী সুবল চন্দ্র দাস বিদ্যালয়টি স্থাপন করেন। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে পাঁচজন শিক্ষক রয়েছেন। কয়েক বছর আগে বিদ্যালয়টিতে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী থাকলেও বর্তমানে একশরও নিচে নেমে এসেছে। দুর্ঘটনার আশংকায় বিদ্যালয়ে আসা ছেড়ে দিয়েছে অনেক শিক্ষার্থী। অনেকে অন্য স্কুলে গিয়ে ভর্তি হচ্ছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘বিদ্যালয়টি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনায় মারাত্মক ব্যাঘাত সৃস্টি হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থী সংখ্যাও দিন দিন কমছে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘বিদ্যালয়ের চার পাশেই খাল। এছাড়া এলাকাটি নিচু হওয়ায় বছরের অধিকাংশ সময় স্কুলের মাঠে পানি থাকে। খালে সেতু না থাকায় স্কুলে যাতায়াতে শিক্ষার্থীদের সমস্যা হয়।’

বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি বিহারী সাহা জানান, ‘বিদ্যালয়টি স্থানীয় প্রশাসন অনেক আগেই ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে। এরপরেও প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

এ ব্যাপারে কচুয়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার হেমায়েতুল ভূইয়া ফারুকের কাছে জানতে চাইলে ঢাকাটাইমসকে তিনি বলেন, ‘ কচুয়ায় যে কয়টি ঝুকিপূর্ণ বিদ্যালয় রয়েছে আয়মা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় তার মধ্যে একটি। ঝুকিপূর্ণ বিদ্যালয়গুলো তালিকা করে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।’

(ঢাকাটাইমস/১৫অক্টোবর/প্রতিনিধি/জেডএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত