ঢাবির ‘গ’ ইউনিটে ৯৪ শতাংশই ফেল

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০১৬, ১০:৪৬ | প্রকাশিত : ০৬ অক্টোবর ২০১৬, ২২:৩৭

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি ১০০ জনের মধ্যে ৯৪ জন শিক্ষার্থীই ফেল করেছেন। এবার এই  ইউনিটটিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৪০ হাজার ২৩৪ জনের মধ্যে পাস করেছেন ২২ শত ২১জন। আর ফেলের সংখ্যা ৩৮ হাজার ১০ জন। অর্থাৎ ‘গ’ ইউনিটে ৫.৫২ শতাংশ পরীক্ষার্থী কৃতকার্য হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদভুক্ত ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেন।

এর আগে সামাজিক বিজ্ঞান ও মানবিকের খ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষাতেও ১০ শতাংশ পাস করেছিল।  বাণিজ্যে এবার এইচএসসিসে সারা দেশে যত সংখ্যক শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ফলাফল জিপিএ ফাইভ পেয়েছল তার অর্ধেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাতে পাসই করতে পারেনি। চলতি বছর বাণিজ্যে জিপিএ ফাইফ পেয়েছিলেন চার হাজার ৩৭১ জন।

পাবলিক পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় বাজে ফলাফল শিক্ষার মানের করুণ চিত্র বলেই মনে করেন শিক্ষাবিদদের কেউ কেউ। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলছেন, পাবলিক পরীক্ষার তুলনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার মিল নেই। এখানে পরীক্ষার্থীদেরকে বাদ দেয়ার জন্য প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়। তা ছাড়া পাবলিক পরীক্ষায় পাঠ্যক্রম থাকলেও এখানে তা নেই।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর গ ইউনিটের এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের একটি সেটে একটি প্রশ্ন কম ছিল। এ ছাড়া অন্য একটি সেটে বিভিন্ন ধরনের ভুল নির্দেশনা ছিল। এতে অনেক শিক্ষার্থী উত্তরপত্রে ভুল লিখেছেন বলে অভিযোগ ছিল।

‘গ’ ইউনিটে লিখিত পরীক্ষার নম্বর ১২০। এরমধ্যে ইংরেজিতে পাস নম্বর ১০। এছাড়া বাংলা, ইংরেজি, ফিন্যান্স অথবা মার্কেটিং, ম্যানেজমেন্ট এবং অ্যাকাউন্টিং মিলিয়ে নম্বর পাস ৪৮। এর সঙ্গে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয় বাদে প্রাপ্ত জিপিএ এর ৮০  নম্বর যোগ করে মোট ২০০ নম্বরে স্কোর নির্ধারণ করা  হয়।

অন্যান্য বার পরীক্ষার দুই/তিন দিনের মাথায় ফলাফল ঘোষণা করা হলেও এবারই ষষ্ঠ দিনের মাথায় ফলাফল ঘোষণা করা হলো। বরাবরের মতই এবারও ইংরেজিতে ফেলের হার বেশি।

পরীক্ষায় এক সেট প্রশ্নে একটি প্রশ্ন কম থাকার ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ঢাবি উপাচার্য বলেন, ‘এটা অনাকাঙ্খিত। তবে আমরা সবাইকে এই এক নম্বর দিয়ে দিয়েছি। সেটে প্রশ্ন কম আসার বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন কর্তাদের সঙ্গে শিগগিরই কথা হবে।’

ফলপ্রকাশে বিলম্ব হওয়ার কারণ জানতে চাইলে বিজনেস স্টাডিজের ডিন শিবলি রুবাইয়াতুল ইসলাম ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘সাত অক্টোবর ফলাফল ঘোষণার কথা থাকলেও আমরা একদিন আগেই ঘোষণা করেছি।’

ফলাফল জানার নিয়ম

‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অবতীর্ণ প্রতিটি ছাত্র/ছাত্রী তার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ডের নাম, পাসের সন এবং মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বরের মাধ্যমে admission.eis.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে।

এছাড়া  শিক্ষার্থীরা যেকোন অপারেটরের মোবাইল ফোন থেকে DU GA টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে সেন্ড করে ফিরতি এসএমএস-এ ফলাফল জানা যাবে।

ছাত্রছাত্রীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম ১ থেকে ১৩০০ থাকা শিক্ষার্থীরা আগামী ৯ অক্টোবর থকে ১৬ অক্টোবরের মধ্যে ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয়ের পছন্দক্রম ফরম পুরণ করতে হবে।

(ঢাকাটাইমস/৬অক্টোবর/এসডি/এআর/জেডএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত