আমাদের সামনে দুটি ফাইনাল

আব্দুস সালাম মুর্শেদী
| আপডেট : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৯:৩৫ | প্রকাশিত : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৮:৪৪

রাশিয়া বিশ্বকাপ শেষ দিকে।আর মাত্র তিনটে ম্যাচ।দুটি সেমিফাইনাল, একটা ফাইনাল।সেমিফাইনাল, ফাইনাল টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বড় ম্যাচ। এ ম্যাচ নিয়েই সবচেয়ে বেশি উত্তেজনা থাকে। কিন্তু ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা বা আরও কয়েকটা বড় এবং জনপ্রিয় দলের বিদায়ে এবারের সেমিফাইনাল, ফাইনাল কিছুটা আকর্ষণ হারাবে। গতরাতের দুটো কোয়ার্টার ফাইনাল ছিল, এ ম্যাচ নিয়েও মানুষের তেমন আগ্রহ ছিল বলে মনে হয় না। ৫০ শতাংশ ফুটবলপ্রেমী গতরাতে খেলা দেখেছে কিনা, আমার সন্দেহ।

ইংল্যান্ড-ক্রোয়েশিয়া দ্বিতীয় সেমিফাইনালও মানুষ হয়তো সেভাবে দেখবে না।তবে ফ্রান্স-বেলজিয়াম প্রথম সেমিফাইনালটা বেশ জমে উঠবে।দুর্দান্ত একটা ম্যাচ হবে। এই ম্যাচটা না দেখলে তারা  দারুণ একটা লড়াই মিস করবে। ১৪ তারিখ ফাইনাল। তার আগে ফ্রান্স- বেলজিয়াম আরেকটা ফাইনাল। এই ম্যাচে যারা জিততে তাদের হাতে বিশ্বকাপ ওঠার প্রচুর সম্ভাবনা দেখছি আমি। তাই ফ্রান্স- বেলজিয়াম ম্যাচকে আরেকটা ফাইনাল বলতে চাই। মানে দুটো ফাইনাল আমাদের সামনে। ফ্রান্স-ইংল্যান্ড ম্যাচ একটা এবং ১৪ জুলাইয়ের আসল ফাইনাল।

ফ্রান্স-বেলজিয়ামের ম্যাচটার দিকে তাকিয়ে আছি আমিও। এটা এমন একটা ম্যাচ যেখানে ভবিষ্যদ্বাণী করা কঠিন। ফ্রান্সের ফুটবল ঐতিহ্য বেলজিয়ামের চেয়ে সমৃদ্ধ বটে, কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বেলজিয়ামের পারফরম্যান্স ফ্রান্সের চেয়ে মোটেও খারাপ নয়। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বেলজিয়াম তাদের চেয়ে এগিয়ে। নিশ্চয়ই এটা ভালো ফুটবল খেলার ফল।

সেমিফাইনালে মানসিক দিক দিয়ে একটা জায়গায় এগিয়ে থাকবে বেলজিয়াম এবং তা হলো, তালো কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের মতো দলকে হারানো। বড় ম্যাচে মানসিক চাপ ঠিক রেখে খেলাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বেলজিয়াম যেটা ধারাবাহিকভাবে দেখিয়ে আসছে। ব্রাজিলকে হারানোর সদ্য সুখস্মৃতি আছে। তারকা সমৃদ্ধ বেলজিয়ামকে রুখা তাই মোটেও সহজ হবেন না সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের পক্ষে।দুটি দলই অত্যন্ত ব্যালেন্স। দুই দলেরই মিডফিল্ড ও আক্রমণভাগ অত্যন্ত শক্তিশালী। আমি মনে করি, সেমিফাইনালে উভয় দলই অত্যন্ত সতর্ক হয়ে খেলবে। রক্ষণ মজবুত রেখে গোল না খাওয়া এবং সুযোগ বুঝে আক্রমণে যাওয়া।ব্রাজিলের সঙ্গে এই কৌশল প্রয়োগ করেই সফল হয়েছিল বেলজিয়াম।

সুইডেন, রাশিয়ার বিদায় ছিল কাঙ্খিত। এ প্রান্ত থেকে যোগ্য দুই দলই সেমিফাইনালে ওঠেছে। ক্রোয়েশিয়া ছোট দেশ, কিন্তু দারুণ ফুটবল খেলে। শারীরক সামার্থে ক্রোশিয়া অনেক বড় দলের চেয়ে এগিয়ে। দারুণ গতিতে বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়তে পারে। লুকা মড্রিচসহ বিশ্বমানের বেশ কয়েকজন ফুটবলার আছে দলটিতে, যারা দামি দামি ক্লাবের হয়ে খেলে থাকেন। কাজেই ইংল্যান্ডের জন্য ম্যাচটা সহজ হবেনা। সুইডেনকে তারা  অনায়াসে হারিয়েছে, কিন্তু সেমিফাইনালটা ইংল্যান্ডের জন্য বেশ কঠিন হবে।

তবে ইংল্যান্ডকেই আমি এগিয়ে রাখছি। অভিজ্ঞ ও নবীনদের সমন্বয়ে বেশ লড়াকু দল ইংল্যান্ড। অধিনায়ক হ্যারি কেন গোলের লড়াইয়ে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন। অনেক দিন ধরেই ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভালো করতে পারছিল না। এবারও তাদের সেভাবে রেটিং করা হয়নি। কিন্তু ইংল্যান্ড এবার দেখিয়ে দিচ্ছে।

আব্দুস সালাম মুর্শেদী : সাবেক তারকা ফুটবলার

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :