টাঙ্গাইলে শিশু হত্যায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, টাঙ্গাইল
 | প্রকাশিত : ২৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:২৮

টাঙ্গাইলে ছয় বছরের শিশু জুয়েল হাসান হত্যা মামলায় অভিযুক্ত আসামি আব্দুর রহিমকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত। মঙ্গলবার বিকালে আসামির উপস্থিতিতে বিচারক শওকত আলী চৌধুরী এই রায় দেন। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করেছে আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুর রহিম টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বিল মাগুরাটা গ্রামের হাফিজ মিয়ার ছেলে। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এস আকবর খান বলেন, ‘এই মামলায় বাদী, চিকিৎসক, ম্যাজিস্ট্রেট, তদন্ত কর্মকর্তাসহ মোট ১০ জন সাক্ষী দেন। সেই ভিত্তিতেই আসামি আব্দুর রহিমকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে। তবে আসামিপক্ষ চাইলে সাত দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারবেন।’

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৮ নভেম্বর রাতে টাঙ্গাইলের বিল মাগুরাটা গ্রামে ওয়াজ মাহফিল হয়। সেখানে চায়ের দোকান দিয়েছিলেন শিশু জুয়েলের বাবা শহিদুর রহমান। ছিল জুয়েলও। রাত একটার দিকে ওয়াজ মাহফিল শেষ হলেও জুয়েল ফিরে না আসায় তার বাবা-মা খুঁজতে থাকে। পরের দিন সকালে পাশের একটি ধানক্ষেত থেকে জুয়েলের চোখ উপড়ে ফেলানো রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনায় ২০ নভেম্বর অজ্ঞাতনামা আসামি করে টাঙ্গাইল মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন জুয়েলের মা রোজিনা বেগম। ১১ ডিসেম্বর মামলার তদন্ত শুরু করেন টাঙ্গাইল গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এস আই ওবাইদুর রহমান। ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারি ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আব্দুর রহিমকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জুয়েলকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। ৫ জানুয়ারি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শেখ হামিদুল ইসলামের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন আব্দুর রহিম।

সেই জবানবন্দিতে আব্দুর রহিম জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরে শিশু জুয়েলের মায়ের সঙ্গে তার পরকীয়া ছিল। জুয়েল তাদের আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলার কারণে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।’  

ঢাকা টাইমস/২৭ নভেম্বর/প্রতিনিধি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :