বিচার দাবিতে দুই লাশ নিয়ে স্বজনদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা
 | প্রকাশিত : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:৩৭

পাবনা সদর উপজেলার ভাঁড়ারা গ্রামে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত দুইজনের লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে গ্রামবাসী। এ ঘটনায় দোষীদের অবিলম্বে শাস্তি দাবি করেছেন নিহতের স্বজনরা। 

মঙ্গলবার দুপুরে ভাড়ারা ইউনিয়নের আওরঙ্গবাদ বাজার এলাকায় শতশত নারী ও পুরুষ এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেয়। বিক্ষোভ মিছিলটি পাবনা জেনারেল হাসপাতাল থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। 

সোমবারের এ ঘটনায় নিহত দুই লাশ ময়নাতদন্ত শেষে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  এ ঘটনায় আরও চারজন আহত হয়। তবে এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি। পুলিশও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

পুলিশ জানায়, সোমবার সন্ধ্যার সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত  পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
নিহত লস্কর খানের পুত্র সুলতান খান বলেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবু সাইদ খানের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করায় আমার উপর ক্ষিপ্ত ছিলেন তিনি। এরই জের ধরে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সোমবার আবু সাইদ খান সশস্ত্র ক্যাডার বাহিনী নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। 

তারা নির্বিচারে গুলি চালিয়ে আমার বাবাকে হত্যা করেছে। আমি আবু সাইদ খানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। 

নিহতর স্বজনরা আগামী তিনদিনের মধ্যে হত্যাকারীদের আইনের আওতায় আনা না হলে পাবনা শহরের প্রধান সড়ক অবরোধ করে পাবনা অচল করে দেওয়ার হুমকী দেন। 

জানা যায়, চর থেকে বালু তোলা নিয়ে ভাড়ারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ এবং জাসদ থেকে সম্প্রতি আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া সুলতান আহমেদের বিরোধ চলে আসছে। 

এর  জের  ধরে সোমবার সন্ধ্যায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দুই পক্ষের লোকজন। এতে গুরুত্বর আহত ছয়জনকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পর আব্দুল মালেক ও লস্কর আলী নামের দুই জন মারা যায়। 
ঘটনার পর থেকেই এলাকায় অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ঢাকাটাইমস/০৪ডিসেম্বর/প্রতিনিধি/ওআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :