ফরিদপুরে নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই, অভিযোগ শাহ জাফরের

ফরিদপুর প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:২৫

ফরিদপুরে সুষ্ঠু নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। সেনা মোতায়নের পরেও পরিবেশ তৈরি হয়নি। বরং প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে অভিযোগ করেছেন ফরিদপুর-১ (বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা-মধুখালী) আসনে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর।

শাহ জাফর বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ওই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য।

বুধবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে ফরিদপুর শহরের ঝিলটুলীতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেছ আলী ইছার বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।

শাহ জাফর বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে। কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে নির্বাচন করতে গিয়ে দেখেছি, তাদের কথার সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই।’

‘আমরা জানি, প্রশাসন নির্বাচন কমিশনের অধীনে। নির্বাচন কমিশন নিশ্চয়ই প্রশাসনকে এ আদেশ দেয়নি যে, এক প্রার্থীর পক্ষে কাজ কর, অন্য প্রার্থীকে বাধা দাও।’

তিনি বলেন, পুলিশ পুরোপুরি নৌকার পক্ষে কাজ করছে। রিটার্নিং কর্মকতাকে জানিয়েছি, অন্যায়ভাবে আমার  নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। তাতে কোনো ফল পাচ্ছি না।’

‘প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে চলছে’- মন্তব্য করে শাহ জাফর বলেন, ‘প্রশাসন প্রকাশ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছে। বিএনপির পক্ষে কাজ না করতেও প্রশাসন থেকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। প্রশাসনে বলীয়ান হয়ে আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন,  কেন্দ্রে বিএনপির কোনো এজেন্ট রাখতে দেয়া হবে না। বিএনপির কাউকে ভোট দিতে কেন্দ্রে যেতে দেওয়া হবে না। যারা বিএনপির এজেন্ট হিসাবে কাজ করবেন, তাদের ‘বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির’ অভিযোগ দেখিয়ে কেন্দ্রের ভেতর থেকেই গ্রেপ্তার করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই। মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করুক, তা চাই। ভোট যেন কেউ ছিনিয়ে নিতে না পারে, ভোট ডাকাতি করতে না পারে, তাও চাই।’

‘বর্তমান অবস্থাই প্রমাণ করে যে, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। এ দেশের সরকারগুলোর যে মানসিকতা ‘সমর্থন থাক বা না থাক ভোটে জিততে হবে’- এজন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কোনো বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, ‘এই নির্মমতা ও অত্যাচারের বিচার কোথাও পাচ্ছি না।  এসপি-ডিসিকে বলেও কাজ হচ্ছে না। পরিস্থিতি দেখে মানুষ হতাশ ও ক্ষুব্ধ। আমরা নিরাপত্তা চাই, অনাচার বন্ধের দাবি জানাই নির্বাচন কমিশন ও সরকারের কাছে।’

সংবাদ সম্মেলনে শাহ জাফর অভিযোগ করেন, নির্বাচনী প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর তার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে। এ পর্যন্ত মধুখালীতে ৪৩ জন, বোয়ালমারীতে ৩১ জন ও আলফাডাঙ্গায় ৭ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৬ডিসেম্বর/প্রতিবেদক/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :