সেতু আছে, রাস্তা নেই!

বদরুল ইসলাম বিপ্লব, ঠাকুরগাঁও
 | প্রকাশিত : ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ০৮:৪৩

সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়ক ছিল ৩২ বছর আগে। বন্যার পানি সড়ক ভেঙে যাওয়ার পর সেই সড়ক আর নির্মিত হয়নি। এতে সেতু থাকলেও তা কোনো কাজে আসছে না। ১০/১২টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বছরের পর বছর ধরে।

১৯৮৭ সালে জাবরহাট ইউনিয়নে আমসারা খাড়িপাড়া এলাকায় টাঙ্গন নদীর উপর নির্মিত সেতুর দুই পারের সংযোগসড়ক বন্যার পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে যায়। এরপর থেকে ওই সংযোগ সড়কটি মেরামত করা হয়নি। ফলে সেতুর পূর্ব পাশের সাদামহল, বনগাঁ, ভান্ডারখন্ড, সেনুয়া গ্রামের বাসিন্দারা নিদারুণ কষ্টে যাতায়াত করে আসছে। ওই এলাকার বাসিন্দা ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জাবরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে আসতে সারা বছর দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এই সেতুর কারণে ভোগান্তি পোহাচ্ছে ১০-১২টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। অথচ সেতুর সংযোগ রাস্তাটি সংস্কার করা হলে পীরগঞ্জ এলাকার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ সহজে পীরগঞ্জ-সেতাবগঞ্জ যাতায়াত করতে পারত।

জাবরহাট কলেজের শিক্ষার্থী শফিকুর ইসলাম, সীমা আকতার  জানান, সড়কটি মেরামত না করায় তাদের সারা বছর নদীর পানি ভেঙে স্কুল-কলেজে যেতে হয়। আর বর্ষাকালে অনেক রাস্তা পাড়ি দিয়ে দূরবর্তী রাস্তা দিয়ে স্কুলে যেতে হয়।

জাবহাট খাড়িপাড়া গ্রামের কৃষক আব্দুল খালেক জানান, জাবরহাট সোনালী ব্যংক ও তহসিল অফিস সেতুর পশ্চিম পার্শ্বে হওয়ায় সামান্য একটু রাস্তার জন্য তাদের দীর্ঘ ৩২ বছর ধরে কষ্ট করতে হচ্ছে। এটি মেরামতের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেও ফল পাচ্ছেন না।

জাবরহাট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আমসারা খালের সেতুর উভয় পাশের সংযোগ সড়কটি বন্যার পানিতে ভেসে নিয়ে যাওয়ার পর আর মেরামত করা হয়নি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবির মুখে সড়কটি সংস্কার করার জন্য আমি একাধিকবার উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় প্রস্তাব উত্থাপন করি। সেই অনুযায়ী উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় মাপ-যোগ করা হয়। কিন্তু সংযোগ সড়কটি নির্মাণে বরাদ্দ না পাওয়ায় তা কাজে আসছে না।’

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন জানান, এর আগের প্রকৌশলী সেতুর বাস্তব অবস্থা দেখে সেটি মেরামতের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বাজেট দিয়েছেন। সেটি বর্তমানে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। অনুমোদন পাওয়া গেলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পীরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল ইসলাম জিয়া বলেন, স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি অনুযায়ী আমসারা সেতু ও রাস্তা  মেরামতের পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। আশা করছি খুব শিগগির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :