আতিকুলের দাবি, তিনিই নৌকার মাঝি

তানিম আহমেদ
 | প্রকাশিত : ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ০৮:৩৪

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্থগিতাদেশ উঠে যাওয়ায় আওয়ামী লীগের বাছাই করা মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, তাকে ক্ষমতাসীন দল যে মনোনয়ন দিয়েছিল, সেটি এখনো বহাল আছে। আর ভোট স্থগিত হয়ে গেলেও তিনি গত এক বছর ধরে মানুষের মধ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।

আনিসুল হকের মৃত্যুতে ফাঁকা মেয়র পদে উপনির্বাচনে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোট ধরে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আর আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে বাছাই করে পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলামকে। তিনি সে সময় ব্যাপক প্রস্তুতিও শুরু করেন।

তবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় শেষ হওয়ার আগে আগে ঢাকা উত্তরে যুক্ত হওয়া দুটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের রিট আবেদেন ছয় মাসের জন্য স্থগিত হয়ে যায় ভোট। গতকাল সে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হওয়ায় ভোটে আর কোনো জটিলতা নেই।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা ইঙ্গিত দিয়েছেন, ভোট হতে পারে আগামী মার্চে। আর এ জন্য নতুন করে তফসিল হবে।

আগেরবার তফসিল হওয়ার পর মনোনয়ন নিয়ে আওয়ামী লীগের অন্য নেতাদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামতে হয় আতিকুলকে। তবে এবার নতুন করে তফসিল হলেও মনোনয়ন নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা নেই আতিকুলের।

বলেন, ‘আমাকে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিয়েছিল। এটা এখনো বলবৎ আছে। এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছি।’

‘এখন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়ে উচ্চ আদালত থেকে একটা নির্দেশনা এসেছে। নির্বাচন কমিশন সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে এবং নির্বাচন অনুষ্ঠানে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে।’

প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে আতিকুল বলেন, ‘নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য গত এক বছর ধরে আমি আমার মতো করে কর্মকা- চালিয়ে যাচ্ছি। দলের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সঙ্গে নিয়মিত বসছি। পাশাপাশি জনসেবামূলক বিভিন্ন কর্মকা-েও অংশগ্রহণ করছি। বিজয়ী হব বলে আশা করছি।’

২০১৫ সালে ঢাকার বিভক্ত সিটি করপোরেশনে উত্তর অংশ থেকে জয়ী আনিসুল হক ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মারা যান। সেই থেকে প্যানেল মেয়র দিয়ে চলছে নগর কর্তৃপক্ষ।

এই নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী করেছিল তাবিথ আউয়ালকে। তবে দলটি এবার নির্বাচনে অংশ নেবে কি না এ নিয়ে সংশয় রয়েছে। গত ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে বড় ব্যবধানে হেরে যাওয়া দলটি এবার উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্তহীনতায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :