কথা রাখল র‌্যাব

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:২২

খুন হয়েছে মা, গ্রেপ্তার বাবা। একমাত্র সন্তান পাঁচ বছরের শিশু সাথীর অসহায়ত্ব ছুঁয়ে যায় তার বাবাকে গ্রেপ্তার করা র‌্যাবে। ঘোষণা আসে, শিশুটির পড়ালেখার দায়িত্ব তারাই নেবে। আর সে যার কাছে থাকবে, সেই মামাকে দেওয়া হবে চাকরি।

কথা রেখেছে বাহিনীটি। সোমবার সাথী ও তার মামা আনোয়ার হোসেনকে উত্তরায় র‌্যাব-১ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। আনোয়ারের হাতে দেওয়া হয় দুই লাখ টাকার চেক। এর এক লাখ টাকা দিয়েছেন র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ আর এক লাখ দিয়েছে র‌্যাব-১।
আনোয়ার হোসেনের জন্য একটি চাকরির ব্যবস্থাও হয়েছে। তিনি শিগগির বেসরকারি একটি কোম্পানিতে যোগ দেবেন।

এখানেই শেষ নয়, এই শিশুটির পড়াশোনার সব দায়িত্বও নেওয়ার ঘোষণা এসেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটির পক্ষ থেকে। র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সারোয়ার-বিন কাশেম এই দায়িত্ব নিয়েছেন।   

গত ৩ জানুয়ারি গাজীপুরের ভাওরাইদ উত্তরপাড়া এলাকায় খুন জন সাথীর মা আফরোজা। পরদিন সেপটিক ট্যাংক থেকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়। এক সপ্তাহের তদন্ত শেষে র‌্যাব জানতে পারে, আফরোজার স্বামী শাহজাহান মিয়াই এই খুনের পেছনে। গ্রেপ্তার করা হয় তাকে।

সেদিনই সাথীর দুর্দশার বিষয়টি সামনে আসে। আর ঢাকা টাইমসকে র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক জানান, শিশুটির বেড়ে উঠতে পাশে থাকবেন তারা।

আনোয়ার পেশায় দিনমজুর এবং তার ঘরেও দুই সন্তান রয়েছে। এই অবস্থায় তার ভাগ্নির দায়িত্ব নেওয়া তার জন্য কঠিন। তাই তার জন্য চাকরির ঘোষণাও আসে সেদিনই। আর ১০ দিনের মধ্যেই যোগাড় হয়ে গেছে সেই চাকরি।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সময় মানবতার সেবায় কাজ করি। আমি নিজেও বিভিন্ন সময় অসহায় মানুষের সাহায্যে কাজ করেছি। শিশুটিকে দেখে আমার খুবই খারাপ লেগেছে। আমি ওর মামাকে বলেছি তিনি যেন নিজের দুই সন্তানের মতো তার ভাগ্নি সাথীকে বড় করেন। ভালোভাবে জীবনযাপনের জন্য আনোয়াকেও একটি চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে।’

র‌্যাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শিশুটির মামা আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমার বাড়িতেই সাথী থাকবে। দরিদ্র মানুষ হলেও আমি সাথীকে পড়াশোনা শিখিয়ে বড় করব। সে যেন ভালো মানুষ হিসেবে বেড়ে উঠতে পারে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত