ট্রেনের দেরিতে বোনা উলে লাখপতি

ঢাকা টাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৬

যাতায়াতে ট্রেনই প্রথম পছন্দ জার্মান নারী ক্লদিয়ার। কিন্তু ট্রেন কি আর ঠিক সময়ে আসে? ফলে ট্রেনের আসা-যাওয়ার বিলম্বের সময়টার মোক্ষম ব্যবহার করেছেন তিনি। বিরক্তি নিয়ে স্টেশনে বসে উলের স্কার্ফ বুনেছেন। গত এক বছর ধরে তিনি এ কাজ করেছেন। আর সেই উলের স্কার্ফে তিনি এখন লাখপতি।

ক্লদিয়া ওয়েবার নামের ওই নারী জার্মানির মিউনিখ শহরের বাসিন্দা। ট্রেন বিলম্বের হিসাব রাখতে অভিনব এক উপায় বের করেছিলেন তিনি। বিলম্বের পরিমাণ বোঝাতে বিভিন্ন রং দিয়ে স্কার্ফ বোনা শুরু করেন। নানা রঙের উল দিয়ে প্রায় ৫ ফুট লম্বা একটি স্কার্ফ বুনে ফেলেন এই নারী।

তারপর তার মেয়ে সেই স্কার্ফটিই বিক্রির জন্য একটি ই-কমার্স সাইটে নিলামে তোলেন। সেখানে মায়ের উলের স্কার্ফটি বোনার বিশদ ব্যাখ্যাও লিখে দেন সারাহ ওয়েবার।

সারাহ লিখেন, ‘ট্রেনের বিলম্বে ভীষণ বিরক্ত তার মা নিজেই হিসাব রাখার একটি অভিনব পদ্ধতি বের করেন। ট্রেন আসতে পাঁচ মিনিট বা তার কম দেরি হলে ধূসর রঙের উলে স্কার্ফ বুনতেন। আর ৫ থেকে ৩০ মিনিট দেরি হলে স্কার্ফ বুনতেন গোলাপি উলে। আর ট্রেন আসতে বা যেতে উভয় ক্ষেত্রেই দেরি করলে বা ৩০ মিনিটের বেশি বিলম্ব হলে, লাল রঙের উলে স্কার্ফ বুনতেন।’

স্কার্ফটি বোনা শেষে মায়ের ইচ্ছানুযায়ী সারাহ সেটি বিক্রির জন্য পোস্ট দেন টুইটারে। কিন্তু তাতে এতটা সাড়া পাবেন তা ঘুনাক্ষরেও ভাবেননি। নিলামে সেই স্কার্ফ কিনতে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু হয় ক্রেতাদের মধ্যে। চলে

রাদরি। শেষমেষ চড়া দামেই বিক্রি হয়েছে স্কার্ফটি। এক ক্রেতা ৭ হাজার ৫৫০ ইউরো অর্থাৎ বাংলাদেশি টাকায় যা ৭ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি।

ক্লদিয়া ওয়েবারের ইচ্ছা এই টাকা তিনি জার্মান রেলওয়ে পরিচালিত দাতব্য সংস্থায় দান করবেন। মেয়ে সারাহ আরেক টুইটার পোস্টে এমনটাই জানিয়েছেন।

জার্মানিতে ট্রেনের বিলম্বের প্রতিকারে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এমনকি অযৌক্তিক কারণে ট্রেন বিলম্ব করলে চাকরিও খোয়া যেতে পারে চালকের।

ঢাকাটাইমস/২১জানুয়ারি/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত