ময়মনসিংহে নবজাতকের মৃত্যু, পালিয়েছেন চিকিৎসক

ব্যুরো প্রধান, ময়মনসিংহ
 | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৭

ময়মনসিংহে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসকের ভুলে নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হয়েছে। সোমবার রাতে নিহত নবজাতকের পিতা হারুন অর রশিদ হাসপাতালের চার পরিচালক, ডা. শিশির ও নার্স অলিম্পিয়া সরকারসহ ছয়জনের নামে মামলা করেছেন।

পুলিশ হাসপাতাল মালিক রেজাউল কবির মুরাদ, আজহার মাহমুদ জুয়েল, আরিফুর রহমান রনি ও নার্স অলিম্পিয়া সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে আসামি ডা.শিশির ও মেহেদীকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই পলাশ কুমার রায় বলেন, নবজাতক হত্যার মূলহোতা ডাক্তার শিশির ও অপর আসামি মেহেদীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ময়মনসিংহ জেলা সদরের খাগডহর ইউনিয়নের কল্যাণপুরের হারুন অর রশিদ তার স্ত্রী জান্নাত বেগমকে রবিবার রাতে শহরের কৃষ্টপুর আলিয়া মাদ্রাসা রোডের পরশ (প্রা.) হাসপাতালে ভর্তি করেন। রাত ১টার দিকে তার স্ত্রীকে অপারেশন রুমে সিজারের মাধ্যমে সন্তান প্রসব করানোর জন্য নেয়া হয়। চিকিৎসক শিশির তার স্ত্রীর সিজার করেন। সিজারকালে তিনি নবজাতকের (কন্যা) সন্তানের পিঠের উপর থেকে নিচ পর্যন্ত কেটে ফেলেন। এছাড়াও নবজাতকের হাত ও মুখ কেটে ফেলেন। ফলে নবজাতক মারা যায়।

পরে সোমবার পুলিশ পরশ হাসপাতাল থেকে নবজাতকের মৃতদেহ উদ্ধার এবং হাসপাতালের মালিক (শেয়ার) রেজাউল কবির মুরাদ, আজহার মাহমুদ জুয়েল ও আরিফুর রহমান রনিকে আটক করে।

পুলিশ জানায়, নবজাতকের মৃতদেহের পিঠে, হাতে ও মুখে বিশাল আকৃতির কাটা দাগ রয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২২জানুয়ারি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত