দুদকেও ভয় নেই কুমারখালীর ডাক্তারদের

এস কে হালদার, কুষ্টিয়া
 | প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮
তালাবন্ধ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা হাসপাতাল

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অভিযানকে পাত্তাই দিলেন না কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাটির অভিযানের পর দেশের চারটি সরকারি হাসপাতালে অনুপস্থিত ডাক্তারদের কাজে ফেরার তথ্য মিললেও কুমারখালীর ডাক্তাররা আগের দিনের মতোই যোগ দেননি কাজে।

সোমবার দেশের আট জেলার ১১টি সরকারি হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে ৪০ শতাংশ চিকিৎসকের অনুপস্থিতি দেখে দুদক। সতর্ক করা হয় ব্যবস্থা নেওয়ার। আর গতকাল পাবনা, দিনাজপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহের পাঁচটি হাসপাতালে অনুপস্থিত চিকিৎসকেরা কাজে যোগ দেন।

তবে গতকালও কুমারখালী হাসপাতালে ১৯ জন চিকিৎসকের মধ্যে মাত্র চারজন উপস্থিত হন কাজে। আর একজন রয়েছেন ছুটিতে। বাকিরা কেন কাজে আসেননি, এ বিষয়ে ব্যাখ্যা নেই কারও।

হাসপাতালে ভর্তি কয়েকজন রোগীর অভিযোগ, তারা কখনো চিকিৎসকদের কাছ থেকে ন্যায্য সেবা পাননি। মনে হয় চাকরি নয়, তাদের দয়া করছেন চিকিৎসকেরা। ডাক্তার ঠিকমতো আসেন না, নার্সদের ডেকে পাওয়া যায় না।

অভিযানের পর কুমারখালী হাসপাতালের অবস্থা জানতে সাংবাদিকেরা সেখানে গেলে চিকিৎসক মিঠুন চক্রবর্তী কথা না বলে তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। ছবি তুলতেও নিষেধ করেন।

জানতে চাইলে কুমারখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক কর্মকর্তা এইচ এম মাসুদ রুমী জানান, ‘আমাদের জনবলের ঘাটতি রয়েছে যথেষ্ট। তার পরও আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি সেবার মান নিশ্চিত করতে।’

সাংবাদিকদের সঙ্গে মিঠুন চক্রবর্তীর আচরণের বিষয়ে জানতে চাইলে এই চিকিৎসা কর্মকর্তা দুঃখ প্রকাশ করেন।

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন রওশন আরা বেগম বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এ ছাড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও আমাদের দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আমরা স্বাস্থ্যসেবার মান বৃদ্ধিতে কাজ করছি।’

অভিযানের পরও কুমারখালী হাসপাতালের পুরনো চিত্রের বিষয়ে জানতে চাইলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আমার বক্তব্য স্পষ্ট। শুধু ডাক্তাররা নয়, সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়মকানুন মেনে চলবেন। সময়মতো অফিসে যাবেন ও ত্যাগ করবেন। যদি কেউ এর ব্যত্যয় ঘটান, তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিকসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :