জার্মানিতে পোশাকশিল্পের প্রযুক্তি প্রদর্শনী ১৪ মে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:২৭ | প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:২৪

জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে হতে যাচ্ছে টেকনিক্যাল টেক্সটাইলের বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রদর্শনী 'টেক্সপ্রসেস' ও বিশেষায়িত টেক্সটাইলের প্রদর্শনী 'টেকটেক্সটিল'। আগামী ১৪ মে চারদিনের প্রদর্শনী দুটি হবে।

প্রদর্শনীর আয়োজক জার্মানিভিত্তিক বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রদর্শনী প্রতিষ্ঠান ম্যাসি ফ্রাঙ্কফুর্ট। প্রদর্শনীতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে কাঁচামালের অপচয় রোধ ও উৎপাদন ব্যয় কমিয়ে আনার প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হবে। তৈরি পোশাক ও বিশেষায়িত টেক্সটাইলের ভবিষ্যৎ বাজার ও এ সংক্রান্ত সর্বাধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করবেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা।

রবিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও  হোটেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে লেদার টেকনোলজির চেয়ারম্যান গুন্তার ভাইট এসব তথ্য  জানান।  

মেসে ফ্রাঙ্কফুর্ট বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ওমর সালাহউদ্দীন,  বাংলাদেশে মেসেফ্রাঙ্কফুর্টের হেড অব অপারেশন্স রুমানা আফরোজ প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

গুন্তার ভাইট বলেন, প্রতিযোগিতামূলক শিল্পে এগিয়ে থাকতে চাইলে কারখানাগুলোরও সে অনুযায়ী সর্বশেষ প্রযুক্তি নিয়ে এগিয়ে থাকতে হবে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা হবে শুধু কম দাম নয়, ভালো মান, ডেলিভারির সময় ও নতুন উদ্ভাবন নিশ্চিত করা।

২০১৭ সালে সর্বশেষ এ প্রদর্শনী হয়। ২০১৫ ও ২০১৭ এর দুই প্রদর্শনীতে যথাক্রমে ১১৩ ও ১৩৯ জন প্রদর্শক অংশ নেন। বাংলাদেশ থেকে একজন প্রদর্শক বান জিন ২০১৭ এর প্রদর্শনীতে তাদের পণ্য প্রদর্শন করেন।

ভেইট জিএমবিএইচের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং ডিএমএ টেক্সটাইল কেয়ার, ফ্যাক্রিক ও লেদার টেকনোলজির চেয়ারম্যান গুন্তার ভাইট বলেন,  বাংলাদেশসহ বিশ্বের আরও ১৮টি দেশে ভেইটের সেলস অফিস আছে যেখানে গার্মেন্টস ও ফ্যাব্রিকের ইস্ত্রি, ফিউজিং এবং প্রেসিং এর মেশিন তৈরি করা হয়।

তিনি জানান, টেক্সপ্রোসেস টেক্সটাইল প্রদর্শনীতে  গার্মেন্টস নকশা, লেআউট, কাটিং, ট্রিমিং, ডিজিটাল টেক্সটাইল মুদ্রণ, কন্ডিশনিং, ফিনিশিং, টেক্সটাইল সরবরাহ এবং টেক্সটাইল রিসাইক্লিং সম্পর্কে ধারণা দেবে বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, টেক্সপ্রোসেসের মূলভাব হবে মাইক্রো-কারখানাগুলো ভবিষ্যতের পোশাকের ভাবনা নিয়ে কিভাবে এগিয়ে যাচ্ছে- সে সম্পর্কে ধারণা দেওয়া।

গুন্তার ভাইট বলেন, আর টেকটেক্সটিল প্রদর্শনীতে  থাকছে টেকনিক্যাল টেক্সটাইলের প্রয়োগ। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল জিওটেক্সটাইলস, মেডিক্যাল টেক্সটাইল, সেফটি ও সিকিউরিটি পোশাক, প্রতিরক্ষামূলক পোশাক এবং খেলাধুলার উপযোগী কাপড় তৈরির প্রযুক্তি ও এ সম্পর্কে ধারণা দেওয়া।

মতবিনিময় সভায় জানানো হয়, বাংলাদেশ থেকে অতীতে এই প্রদর্শনীতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছিল। এর মধ্যে জায়ান্ট গ্রুপ, মেট্রো গ্রুপ, নাসা গ্রুপ, এভিন্স কগ্রুপ, ডেকো গ্রুপ, ইসলাম গার্মেন্টস উল্লেখযোগ্য।

ভিডিএমএ জার্মানি ও ইউরোপের যান্ত্রিক প্রকৌশল শিল্পে ৩ হাজার ২০০ এরও বেশি সদস্য সংস্থাগুলোকে প্রতিনিধিত্ব করে। ভিডিএমএ টেক্সটাইল কেয়ার, ফ্যাব্রিক অ্যান্ড লেদার টেকনোলজি ট্রেড এসোসিয়েশন সেলাই ও গার্মেন্টস প্রযুক্তি নির্মাতা, জুতা এবং চামড়া প্রযুক্তি, লন্ড্রি ও ড্রাই ক্লিনিং এর পাশাপাশি প্রযুক্তিগত টেক্সটাইল প্রক্রিয়াকরণে মেশিন নির্মাতাদের সহায়তা করে। ভিডিএমএ টেক্সপ্রসেসের অংশীদার হিসেবে কাজ করছে।  

ভেইট জিএমবিএইচের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গুন্তার ভাইট বলেন,  বিশ্বব্যাপী টেক্সটাইল উৎপাদনে টেকনিক্যাল টেক্সটাইলের অংশ ২৭ শতাংশের কাছাকাছি। ২০২০ সালের সধ্যে এই বাজার দ্বিগুণ বেড়ে ১৭৫ বিলিয়ন ডলারের হবে। যেখানে ২০০০ সালে ছিলো মাত্র ৯৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ইউরোপে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই সেক্টর ক্রমাগত বেড়েছে এবং প্রযুক্তিগত টেক্সটাইলের গুরুত্ব আরও বাড়ছে। ১৩ বিলিয়ন ইউরো বার্ষিক বিক্রি নিয়ে জার্মানি প্রযুক্তিগত টেক্সটাইলে বিশ্ববাজারের শীর্ষস্থানে আছে।

সভায় জানানো হয়, এ বছর প্রদর্শনীতে বিশেষ ফোকাস থাকবে শহুরে বাসভবনের দিকে।  জাতিসংঘের মতে, ২০৫০ সালের মধ্যে প্রায় ৭০ শতাংশ মানুষ মহানগর ও বড় শহরে বসবাস করবে। যা তৈরি করছে নতুন চ্যালেঞ্জ হাউজিং মোবিলিটির ধারণা, খাদ্য সরবরাহ এবং স্বাস্থ্যসেবার বিধান নিয়ে। এই ক্ষেত্রটি ফোকাস করবে টেকনিক্যাল টেক্সটাইল । একজন লোকের দৈনন্দিন জীবনকে আরও সহজ, আরও ভালো এবং নিরাপদ করে  তোলার বিষয়েও তুলে ধরা হবে।

(ঢাকাটাইমস/১০ফেব্রুয়ারি/জেআর/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :