তাড়াশে ঐতিহ্যবাহী দই মেলা

রানা আহমেদ, সিরাজগঞ্জ
 | প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:০১

চলনবিল অধ্যুষিত সিরাজগঞ্জের তাড়াশে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে দইয়ের মেলা হয়েছে। মেলাকে ঘিরে সারাদিন এলাকায় সাজসাজ রব বিরাজ করে।

শনিবার সন্ধ্যায় নামিদামি ঘোষদের দই আসার মধ্যদিয়ে তাড়াশের প্রায় ২৫০শ বছরের ঐতিহ্যবাহী দইয়ের মেলা হয়।

রবিবার দিনব্যাপী মূল মেলায় দইসহ মুড়ি, মুড়কি, চিড়া, গুড় রসনাবিলাসী খাবার বেচাকেনা চলে। ঐতিহ্যবাহী চলনবিলের তাড়াশে দই মেলা নিয়ে রয়েছে নানা গল্প কাহিনী।

তাড়াশ উপজেলার প্রবীণ ব্যক্তি সৌরেন্দ্র নাথ ঘোষ জানান, তাড়াশের তৎকালীন জমিদার পরম বৈঞ্চব বনোয়ারী লাল রায় বাহাদুর প্রথম দই মেলার প্রচলন করেছিলেন। সাধারণত জনশ্রতি আছে তৎকালীন পরম বৈঞ্চব জমিদার রাজা রায় বাহাদুর দই ও মিষ্টান্ন পছন্দ করতেন। এছাড়া জমিদার বাড়িতে আসা অতিথিদের আপ্যায়নে এ অঞ্চলে ঘোষদের তৈরি দই পরিবেশন করা হতো। আর সে থেকেই জমিদার বাড়ির সামনে রশিক রায় মন্দিরের মাঠে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী দই মেলা বসত। প্রতি বছর শীত মৌসুমের মাঘ মাসে শ্রী পঞ্চমী তিথিতে দই মেলায় বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, নাটোর থেকে ঘোষেরা দই এনে মেলায় পসরা বসিয়ে বেচাকেনা করতেন।

কথিত আছে সবচেয়ে ভাল সুস্বাদু দই তৈরিকারক ঘোষকে জমিদারের পক্ষ থেকে উপঢৌকন প্রদান করার রেওয়াজ ছিল। তবে জমিদার আমল থেকে শুরু হওয়া তাড়াশের দইয়ের মেলা এখনও মাঘ মাসের পঞ্চমী তিথিতে উৎসব আমেজে বসার বার্ষিক রেওয়াজ এখনও আছে। দইয়ের মেলায় আসা এ অঞ্চলের দইয়ের স্বাদের কারণে নামেরও ভিন্নতা রয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১০ফেব্রুয়ারি /এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :