কাশ্মীরে সিআরপিএফের গাড়িবহরে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ৪৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:০৩ | প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:২৮

ভারতের কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বাহিনীর (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার বিকালে পুলওয়ামা জেলায় সিআরপিএফ-এর একটি গাড়িবহরে ইম্প্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিস্ফোরণে কমপক্ষে ৪৪ জওয়ান নিহত হয়েছেন।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মাহিন্দ্র স্করপিও গাড়িটিতে অন্তত ৩৫০ কেজি বিস্ফোরক ছিল।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, ওই ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় ৪১ জন। যার মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের শ্রীনগরে সেনা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ এই হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে কাশ্মীর পুলিশ।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হামলাকারী আদিল আহমেদ ধার যিনি ‘আদিল আহমাদ গাদি তাকরানেওয়ালা’ এবং ‘গুদিনবাগের ওয়াকাস কমান্ডো’ হিসেবে পরিচিত। তিনি পুলওয়ামা জেলার কাকাপুরা এলাকার বাসিন্দা বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। গতবছর আদিল আহমাদ জইশ-ই-মোহাম্মদের পক্ষে কাজ করা শুরু করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকালে পুলওয়ামা জেলার শ্রীনগর-অনন্তনাগ হাইওয়ের ওপর দিয়ে জম্মু থেকে শ্রীনগর যাচ্ছিল সিআরপিএফ-এর ৭৮টি গাড়ির একটি বহর। বাস, ট্রাক ও এসইউভি মিলিয়ে ২৫০০ জন জওয়ান ছিলেন তাতে।পথে গোরিপোরার কাছে বিস্ফোরকভর্তি জিপ নিয়ে জওয়ানদের বাসে ধাক্কা দেয় বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। সঙ্গে সঙ্গে তীব্র বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের পর নিরাপত্তাবাহিনীকে লক্ষ্য করে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা গুলিও চালায় বলে দাবি পুলিশের। আত্মঘাতী বিস্ফোরণের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না কাশ্মীর পুলিশ প্রধান দিলবাগ সিং।

যেই শ্রীনগর-অনন্তনাগ মহাসড়কে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে, সর্বদা কড়া নিরাপত্তায় মোড়া থাকে সেটি। এ দিন বিস্ফোরণের সময়ও রাস্তায় টহল দিচ্ছিল সিআরপিএফ, কাশ্মীর পুলিশ এবং সেনাদের একটি দল। তাদের নজর এড়িয়ে কীভাবে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি নিয়ে এই ঘটনা ঘটাল জঙ্গিরা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গোটা এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে।

ইতোমধ্যে হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ। নিজের টুইটার তিনি লেখেন, ‘উপত্যকায় ভয়ঙ্কর হামলা হয়েছে বলে খবর পেলাম। সেখানে আইডি বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে জঙ্গিরা। তাতে বেশ কয়েকজন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অনেকে। এই হামলার তীব্র নিন্দা করছি। মৃতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাই। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর উরির সেনা ছাউনিতে জঙ্গি হামলায় নিহত হয়েছিল ভারতের ১৯ জন সেনা। চার জন জঙ্গিও মারা গিয়েছিল ওই ঘটনায়। কিন্তু গতকাল ওই হামলার ঘটনা উরির ভয়াবহতাকেও ছাপিয়ে গেছে। গোয়েন্দা ব্যর্থতার কারণেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে।

ভারতের প্রাক্তন সেনাপ্রধান শঙ্কর রায় চৌধুরীর মতে, এটা গোয়েন্দা ব্যর্থতার কারণেই হয়েছে।

ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ঘটনার পর জরুরি বৈঠকে বসেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়— সকলেই হামলার নিন্দা করেছেন এবং নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

(ঢাকাটাইমস/১৪ফেব্রুয়ারি/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :