পাঁচ শতাংশ প্রণোদনা চায় বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:২৮

আগামী দুই বছরের জন্য রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্পে ৫ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিজিএমইএর প্রেসিডেন্ট সিদ্দিকুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা রপ্তানির আয়ের ৮৩ শতাংশ কন্ট্রিবিউট করি। সম্প্রতি পোশাক শিল্প শ্রমিকদের বেতন বাড়ানো হয়েছে। আমাদের এ খাতকে অন্তত পক্ষে আগামী দুই বছর প্রণোদনা দিতে হবে।   

শনিবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে আসা ও মন্ত্রীসভার বিভিন্ন স্তরে দায়িত্ব পাওয়া পোশাক খাতের উদ্যোক্তদের সংবর্ধনা দেয় বিজিএমইএ।  এ উপলক্ষে বিজিএমইএ ভবনে এক অনুষ্ঠানে সংগঠটির সভাপতি এ দাবি জানান। 

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমাদের পোশাক শিল্প মালিকদের রক্তক্ষরণ হচ্ছে। এ সেক্টরকে রক্ষা করতে হবে। তৈরি পোশাক রপ্তানিতে আমরা দ্বিতীয় হলেও আন্তজার্তিক মার্কেটের শেয়ার আমাদের মাত্র ৬ শতাংশ। এটা ১৫ শতাংশ নিয়ে যেতে চাই। এর জন্য আমাদের সরকারকে সহায়তা দিতে হবে। এতে দেশের অর্থনীতির দ্রুত উন্নয়ন হবে।
এক্সিট পলিসি ব্যাংকে থাকা উচিত মন্তব্য করে তিনি বলেন, দেখা যায় কোন ফ্যক্টরির সমস্যা হলে ব্যংক তাদের দেয়া সুবিধাগুলো কেড়ে নেয়। যে প্রতিষ্ঠান ২০ বছর ব্যাংককে সাপোর্ট দিয়েছে বিপদে পরলে সেই ব্যংকই ভুলে যায় প্রতিষ্ঠানকে।

রপ্তানিমুখী শিল্পকে ভ্যাট মুক্ত রাখার আহবান জানিয়ে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা ভ্যাট মুক্ত থাকতে চাই। পৃথিবীর কোনো দেশে রপ্তনিমুখী শিল্পে ভ্যাট নেই। 
তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের বিভিন্ন সমস্যা আছে। সিঙ্গেল ডিজিটের (১০ শতাংশের নিচে) ঋণ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এটা এখনও কার্যকর হচ্ছে না। 
কোয়ালিটি বিদুৎ পাওয়া যাচ্ছে না অভিযোগ করে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমাদের গ্যাস ও বিদ্যুৎ নিরবচ্ছিন্ন দিতে হবে। 

‘ডুয়িং বিজনের সূচকে এখন বাংলাদেশ ১৭৬। এটাকে ১০০’র নিচে নিয়ে আসতে হবে। এটা হলে আমাদের ব্যবসা সহজ হবে। বিদেশে দেশের ভাবমূর্তি উন্নত হবে।’
পোশাক ফ্যাক্টরির এলাকার রাস্তার আবকাঠামো গত সমস্যা তুলে ধরে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, শিল্প কারখানার  জন্য মিনিমাম ২৪ ফিট রাস্তা প্রয়োজন।

এ সময় নিজেদের দেশকে ব্র্যান্ডিং করার আহ্বান জানিয়ে সিদ্দিকুর রহমান। বলেন, ব্র্যান্ডিং না করায় একই মানের পণ্য বানিয়েও আমরা বিদেশিদের মতো সেই দাম পাই না।
এফবিসিসিআইর সভাপতি উপস্থিত মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, এ সেক্টরের সমস্যাকে নিজের মনে করবেন। 

বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি ও সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মুর্শেদী বলেন,  এই শিল্প অনেক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। এর পরেও গত ১০ বছরে ৩২০ শতাংশ বেতন বাড়ানো হযেছে। আমার পক্ষ থেকে এ শিল্পের জন্য যেটা বলা প্রয়োজন সেটা আমি সংসদে বলবো। 

সালমান এফ রহমান বলেন, গত দশ বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে পরবর্তী স্তরে যেতে আমাদের আরও বেশি খাটনি করতে হবে। গত দশ বছরে যা অর্জন তার মূল চালিকা শক্তি বেসরকারি খাত ছিল এটা প্রধানমন্ত্রী বুঝতে পেরেছেন। এটা তার মন্ত্রী পরিষদ দেেেখই বোঝা যায়। অর্থমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী, পাট ও বস্ত্র মন্ত্রী, স্বাস্থ্য, ভূমী, এলজিইডি মন্ত্রী সবাই ব্যবসায়ীরা।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, মপ্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, ইজি অব ডুয়িং বিজনেস সূচক (ব্যবসায় উন্œয়ন সূচক ) ও ওয়ান স্টপ সার্ভিস নিয়ে আপনি কাজ করেন। আমি এটা নিয়ে কাজ করছি।  এ দুইটি সমস্যা সমাধান হলে ৮০-৯০ শতাশ কাজ সমাধান হয়ে যাবে।

সালমান এফ রহমান বলেন, ট্যাক্স রেটগুলো কমাতে হবে। অর্থমন্ত্রী আমাদের বলেছেন, ট্যাক্স রেট মাল্টিপাল হবে ও রেটও কমাবে। 

কন্টিনেইনার অপসারণ দ্রুত করার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রী আমাদের জানিয়েছে ১৫০ টি স্ক্যানার কেনা হচ্ছে। সব জিনিস স্ক্যান করা হবে। গার্মেন্ট শিল্প ৩৫ বিলিয়ন ডলার এক্সপোর্ট করছে। এ সেক্টরে আরও সুবিধা দিলে ৭০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ে কন্ট্রিবিউ করতে পারবে। 

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, তার মন্ত্রণালয়ের অধীনে পোশাক খাতের জন্য করণীয় যা কিছু আছে তা তিনি অবশ্যই করবেন।  

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ৩৩ বছর পোশাকশিল্প ব্যবসায় আমার। আমার চিন্তুা ওই দিকেই থাকবে। ইজি অব ডুইং বিজনেস সূচকে উন্নতি আমাদের প্রথম প্রায়োরোটি। ১২- ১৩ শতাংশ সুদ নিয়ে ব্যবসায় টিকতেই পারবো না আমরা। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন বিজিএমইএ সহ সভাপতি মো. নাছির। এতে নরসিংদী-৩ আসন থেকে নির্বাচিত জহিরুল হক ভূইয়া মোহন, সিলেট-৩ আসনের মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কায়েস, সিরাজগঞ্জ-৫ থেকে নির্বাচিত আব্দুল মমিন মন্ডল, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান সিনহাসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। 

ঢাকাটাইমস/১৬ফেব্রুয়ারি/জেআর/ইএস

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :