শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে ডাস্টবিনে ফেললেন ছাত্রলীগ নেতা

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫৬ | প্রকাশিত : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৪৮

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে মেরে ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। আহত শিক্ষার্থী এখন হাসপাতালে ভর্তি। 

অভিযুক্ত ইমাম হাসান হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক সম্পাদক। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের অনুসারী। এছাড়া ডাকসু এবং জসীম উদ্দিন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক পদপ্রত্যাশী। 

কথা কাটাকাটির জেরে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন ক্যাফেটেরিয়ার সামনে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। 

মারধরে আহত ছাত্রের নাম মীর কাসেম। তিনি টুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। মারধরকারী এবং ভুক্তভোগী উভয়ই জসীম উদ্দিন হলের ছাত্র। 

মারধরের সময় কাসেমকে বাঁচাতে দিয়ে আহত হন একই হলের দ্বিতীয় বর্ষের বিশ্বধর্ম ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র জোবায়ের, তৃতীয় বর্ষের ম্যানেজম্যান্ট ও ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের মোস্তফা দাউদ ও দ্বিতীয় বর্ষের ইসলামিক স্টাডিস বিভাগের শওকত। তাদের কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন ও একটি মানিব্যাগ ছিনিয়ে নেওয়া হয় বলেও অভিযোগ ভুক্তভোগীদের৷  

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে ইমাম ও কাসেমের মধ্যে একটি বিষয়ে কথা কাটাকাটি হয়। 

এক পর্যায়ে ইমামসহ তার অনুসারীরা কাসেমকে মারধর করতে থাকেন। এ সময় কাসেমকে বাচাতে গিয়ে আরো তিনজনকে মারধর করেন ইমামের অনুসারীরা।

কাসেম গুরুতর আহত হলে ইমামের অনুসারীরা তাকে হলের ডাস্টবিনে ফেলে রাখেন। পরে সেখান থেকে সূর্যসেন হল ছাত্রলীগ নেতা মেশকাতসহ কয়েকজন তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। 

অভিযোগের বিষয়ে ইমামের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তার মোবাইল ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ঢাকাটাইমস/২০ফেব্রুয়ারি/এনএইচএস/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :