বন্ধুর সঙ্গে আর চা খাওয়া হলো না বাবুর

এম গোলাম মোস্তফা, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:২৫

বন্ধু অলোক কুমারের সঙ্গে চা খেতে রওনা হয়েছিলেন জয়নাল আবেদীন বাবু। বুধবার রাত ১০.২১ মিনিটে তার সঙ্গে কথা হয় অলোক কুমারের। এর সাত থেকে আট মিনিট পরে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়, তাকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। জয়নালের সঙ্গে তার আর চা খাওয়া হলো না।

বন্ধুকে গতকাল থেকেই খুঁজে ফিরছেন অলোক কুমার সরকার। ঢাকাটাইমসের সঙ্গে আলাপকালে  কথাগুলো বলছিলেন তিনি। বলেন, ‘আমার সঙ্গে চা খাওয়ার কথা বলে চুড়িহাট্টার চৌরাস্তার কাছে আসলেই তার সঙ্গে আমার শেষ কথা হয়। এর পরে আর তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারি নাই, তার মোবাইল বন্ধ পাই।’

রাজধানীর চকবাজারের বুধবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে নন্দ কুমার দত্ত সড়কের শেষ মাথায় আগুনের সূত্রপাত।  মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সে আগুন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি প্রাইভেটকারের সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে ভবনে আগুন লাগে। এরপর তা ছড়িয়ে যায় আশেপাশের রেস্টুরেন্ট, ভবনে। একটি ভবনের নিচতলায় দাহ্য পদার্থের গুদাম ছিল। সেখানে থেমে থেমে শব্দ করে ছোট ছোট বিস্ফোরণ হয়।

অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনায় স্বজনদের আহাজারীতে ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিবেশও ভারী হয়ে উঠছে। চারিদিকে শোনা যাচ্ছে কান্নার রোল। কেউ কেউ ডুকরে ডুকরে কাঁদছেন। কেউ স্বজনকে জড়িয়ে ধরে কাঁদছেন। একজন আরেকজনকে সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেরে মর্গের সামনে তুহিন নামের একজন কেঁদে কেঁদে মোবাইল ফোনে বলছে, ‘আব্বা আমি তুহিন, আমাগো এনামুল পুইড়া মইরা গেছে। আমি আর রাজীব খুঁইজ্যা ঢাকা মেডিকেলে তাকে পাইছি।’

পরে তুহিনের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, এনামুলের পুরা নাম কাজী এনামুল হক অভি। তিনি ঢাকা সিটি কলেজ থেকে বিবিএ পড়েছেন। রূপালী ইনস্যুরেন্সে ইউনিট ম্যানেজার হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন। এনামুলের বাড়ি পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ। তিনি ওই এলাকায় থাকতেন। রাতে দাঁতের চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন। সম্পর্কে তুহিনের ভাতিজা এনামুল।

ঢাকাটাইমস/২১ফেব্রুয়ারি/জিএম/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :