পুলিশি সহায়তায় রক্ষা পেলেন খাদে পড়া প্রাইভেটকার যাত্রীরা

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৮:৩৫

কোনো কোনো পুলিশের নেশা এমনই যে, তারা সুযোগ পেলেই প্রতিনিয়ত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান, সহযোগিতা করার সুযোগ খোঁজেন।

বুধবার রাত সোয়া ২টার দিকে টহল দেয়ার সময় উপজেলার চরআলগী ইউনিয়নের জিড়াতিপাড়া গ্রামে গফরগাঁও-নান্দাইল সড়কের মোড়ে হঠাৎ নারী-শিশুর কান্নাকাটি শুনতে পান গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল আহাদ খান। ডাকাত পড়েছে ভেবে তারা ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে যান। কিন্তু একদিকে রাতের অন্ধকার, অন্যদিকে প্রচণ্ড কুয়াশার দরুণ চারদিকে কিছুই দেখা যায় না। এ সময় দেখতে পান সড়কের নিচ থেকে একজন নারী তিন বছর বয়সী একটি শিশুকে কোলে নিয়ে উপরে উঠে আসছেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই আরেক ভদ্রলোক অপর এক নারী ও একটি শিশুকে নিয়ে উপরে উঠে আসেন। তখনো ভদ্রলোক, নারী শিশুরা ভয়-আতঙ্ক।

ওসি আহাদ খান বিপদগ্রস্ত পরিবারটিকে অভয় দিয়ে কথা বলে বুঝতে পারেন, পরিবারটি প্রাইভেট কারযোগে ঢাকা থেকে এসেছেন। এই পথ দিয়ে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর যাওয়ার সময় প্রাইভেটকারটি মোড় ঘুরাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাঁচ ফুট নিচে খাদে পড়ে যায়। এতে কেউ হতাহত বা গাড়ির বড় ক্ষতি না হলেও সকলে প্রচণ্ড ভয় পেয়েছেন।

ওসি আহাদ খান তাদের সান্তনা দেয়ার পাশাপাশি তাদের বিপদমুক্তির চিন্তা করেন। কিন্তু গাড়িটি সড়কে তুলতে দড়ি ও লোকবল প্রয়োজন। পরে এই সড়কে চলাচলকারী একটি পিকআপ গাড়ি দাঁড় করে, মোটা দড়ি ও পিকআপের লোকজনসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে টেনে-ধাক্কা দিয়ে নিচ থেকে গাড়ি সড়কে তুলে অসহায় পরিবারটিকে বিদায় দেন।

গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, ভদ্রলোক নিজেই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। অপরিচিত সড়কে ও রাতের অন্ধকারের সাথে প্রচণ্ড কুয়াশা থাকায় মোড় ঘোরার সময় গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিচে পড়ে যায়। ভাগ্য ভালো যে সড়কের পাশের খাদটি বেশি গভীর ছিল না। অসহায় পরিবারটিকে সহায়তা করতে পেরে ভালো লাগছে।

(ঢাকাটাইমস/২১ফেব্রুয়ারি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :