‘গণতন্ত্রহীনতায়’ নেই জবাবদিহিতা: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
| আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:২৩ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:২৭
ফাইল ছবি

বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এ কারণে সরকার অপকর্ম করলেও জবাবদিহিতা করতে হচ্ছে না।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানিতে অংশ নিয়ে এ কথা বলেন জোটের মুখপাত্র। ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে এই গণশুনানি করা হচ্ছে। এতে জোটের পরাজিত প্রার্থীরা বক্তব্য রাখছেন।

শুনানি শুরুর আগে ফখরুল বলেন, সরকারের উদাসীনতার কারণেই দেশে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে।

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের স্মরণে শোক প্রস্তাবও পাঠ করেন বিএনপি নেতা। এ সময় নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন ও দোয়া করা হয়। 
ফখরুল বলেন, ৩০ ডিসেম্বর দেশে একটি প্রহসনের নির্বাচন করা হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ না থাকায়, যা ইচ্ছা তাই করছে সরকার। তাকে কোনো কিছুর জন্য জবাবদিহি করতে হয় না।

পাঁচ সদস্যের বিচারক প্যানেলের প্রধান হিসেবে শুনানিতে যোগ দিয়েছেন ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন। এ সময় তিনি বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের অনিয়ম ও নির্যাতনের অভিযোগ রেকর্ড করাই গণশুনানির মূল উদ্দেশ্য।

অন্যদের মধ্যে রয়েছেন এমাজউদ্দীন আহমদ, নুরুল আমিন বেপারী, মহসিন রশীদ, আনিসুর রহমান খান, দিলারা চৌধুরী ও আসিফ নজরুল।

ঐক্যফ্রন্টের শরিক জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিমকোর্ট বার সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনসহ ধানের শীষের পরাজিত প্রার্থীরাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/বিইউ/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :