সানিন তার মাকে পাবে না?

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০৩ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৪০

পাঁচবছরের সানিন ছিল অসুস্থ। তার জন্য অষুধ কিনতে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন মা হালিমা বেগম শিলা। বাড়ি থেকে বের হওয়ার পরপরই আগুনের লেলিহান শিখায় ভস্মিভূত হয়ে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয় চুড়িহাট্টা। এরপর থেকে সানিনের মাও নিখোঁজ। এক স্বজনের সঙ্গে মাকে খুঁজে ফিরছে ছোট্ট মেয়েটি। এখনো প্রায় কিছু বুঝে উঠতে না পারা হতবিহ্বল সানিনের প্রশ্ন- আমি কি আমার মাকে পাবো না?

বুধবার দিবাগত রাতে ভয়াবহ আগুনের পর এখনো আহাজারি, আর্তনাদ আর মাতমে ভারী হয়ে আছে চকবাজার। মাঝে কেটে গেছে তিনটি দিন। তবে আর বাড়ি ফেরেনি শিলা। সেদিনের পর থেকে কোনও মতেই দেখা মিলছে না তার।

ঘটনাস্থল, হাসপাতাল, মর্গেও তার সন্ধান পাচ্ছেন না স্বজনরা। শোকার্ত মানুষের মিছিলেও নেই শিলা। তবে কোথায় তিনি? এমন প্রশ্ন নিয়ে শিলাকে খুঁজে ফিরছে তার প্রাণপ্রিয় সন্তানও।

যে সন্তানের সুস্থতার জন্য ওষুধ আনতে বেরিয়েছিলেন শিলা, সেই সন্তানের চোখেমুখে এখন ভর করেছে রাজ্যের বিষাদ আর মনে অজানা ভয়। হারানোর ভয় নিয়েই প্রিয় মাকে খুঁজে ফিরছে সানিন। তার রয়েছে পাঁচ মাস বয়সী আরেকটি বোন।

ঘটনার ভয়াবহতা সম্পর্কে খুব বেশি কিছু বুঝতে না পারলেও ক’দিনে লোক মুখে নানা কথা শুনেছে সানিন। তার কথা শুনে মনে হয়েছে সে তার মাকে দেখেছে। একে ওকে সানিন বলছে ‘আগুনে আমার আম্মার গলার সেইন, হাতের চুড়ি ভেঙে গেছে। আমার আম্মু ওখানে শুয়ে আছিল। আমার আম্মু মরার আগে সব আগুন আমার আম্মুর বুকে লাগি গেছে। আম্মুর গায়ে আগুন লাগি গেছে আর হসফিটালে নিয়ে আসছে।’

তার এ কথা শুনে অন্যরা বলছে, তার মা আর বেঁচে নেই। সে আসলে বুঝতে পারছে না কী হয়েছে তার মায়ের। শুক্রবার মায়ের খোঁজে স্বজনের সঙ্গে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আসে সানিন।

পরিবারের সদস্যদের ধারণা, নিচে ওষুধ কিনতে গিয়ে শিলা হয়তো ভয়াবহ আগুনের কবলে পড়েছেন। হয়তো তিনি আর নেই। তাই শিলার লাশ খুঁজে পেতে মেয়ে সানিনের ডিএনএ নমুনাও চিকিৎসকদের দিয়েছেন মামা শ্বশুর বেলাল হোসেন।

বেলাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার ভাগিনা বৌ, সানিনের আম্মু। ঘটনার দিন রাত্রে ওষুধ কিনতে নিচে আসছিল। তার পর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাই তার লাশ খুঁজে পেতে সানিনের ডিএনএ নমুনা দিয়েছি।’

বেলাল জানান, চকবাজারে যেখানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছিল সেখান থেকে কিছুটা দূরে পরিবার নিয়ে থাকতেন শিলা। ঘটনার দিন রাতে সানিন একটু অসুস্থ ছিল। তার ব্যবসায়ী বাবা সুমনও বাসায় ছিল না। তাই উপায় না দেখে মা শিলা সানিনের জন্য ওষুধ কিনতে বের হয়েছিল। সেই যে সন্তানদের বাসায় রেখে বের হয়েছিল আর ফেরেনি

(ঢাকাটাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/এনআই/ডিএম)  

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :