শপথ নিলেও পুনঃনির্বাচন চান ডাকসু ভিপি নুর

ঢাবি প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ মার্চ ২০১৯, ২১:৩৭ | প্রকাশিত : ১২ মার্চ ২০১৯, ১৯:৫৬

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ভিপি পদে বিজয়ী নুরুল হক নুর সব পদেই পুনঃনির্বাচনের দাবি করেছেন।  একই সঙ্গে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ৩১ মার্চের মধ্যে পুনঃনির্বাচন চান তিনি।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুর এ কথা বলেন। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল থেকে নির্বাচিত নুরের সঙ্গে তার প্যানেলের সমাজসেবা সম্পাদক পদে আখতার হোসেনও নির্বাচিত হয়েছেন।

নুর বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ৩১ মার্চের মধ্যে পুনঃনির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। নিরপেক্ষ শিক্ষকদের মাধ্যমে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে বিকেলে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুরোধে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার করার ঘোষণা দেন নুর। এর  কয়েক ঘণ্টা পর নতুন এই দাবির কথা বললেন তিনি। এর আগে ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদকের পদ ছাড়া অন্য সবগুলো পদে নতুন নির্বাচনের দাবির কথা সাংবাদিকদের বলেছিলেন সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের এই নেতা।

নুর সাংবাদিকদের বলেন, শুরু থেকেই এই নির্বাচনের প্রক্রিয়াটি ত্রুটিপূর্ণ ছিল। গতকাল আমরা সেটিরই প্রতিফলন দেখেছি। এই কারণেই ছাত্রলীগ বাদে সকল ছাত্র সংগঠন নির্বাচন বর্জন করেছে। শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে আমি তাদের দাবির প্রতি একমত। যেসব শিক্ষক ও কর্মকর্তা নির্বাচনের দায়িত্বে ছিলেন তাদের বাদ দিয়ে নতুন করে নিরপেক্ষ শিক্ষকদের দিয়ে পুনর্নির্বাচন দাবি করেন নুর।

‘পুনঃনির্বাচন হলে সবগুলো পদেই হতে হবে। আমরা বিশ্বাস করি ফেয়ার নির্বাচন হলে আমরা পূর্ণ প্যানেলেই জিতবো।’

নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করা অন্যান্য সংগঠন এ বিষয়ে যা সিদ্ধান্ত নেবে তাতে পূর্ণ সমর্থন থাকবে বলেও জানান ডাকসু ভিপি।

এদিকে নুরের ওপর ছাত্রলীগের হামলা এবং পরে সংগঠনটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভনের অভিনন্দন জানানো প্রসঙ্গে নুর বলেন, ‘ছাত্রলীগ প্রয়োজনে কাছে টানে প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে ছুড়ে ফেলে।’

নির্বাচনে জয়ের পর দুপুরে টিএসসি এলাকায় এলে নুরকে ধাওয়া করে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হন ছাত্রদলের প্যানেল থেকে সমাজসেবা সম্পাদক প্রার্থী তৌহিদুর রহমান। এরপর নুর ও তার সঙ্গীরা টিএসসির ভেতরে অবস্থান নেন।

বিকালে সেখানে গিয়ে ভিপি পদে পরাজিত প্রার্থী ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভন তার সঙ্গে সাক্ষাত করেন। তিনি নুরকে বুকে জড়িয়ে ধরেন।

এসময় নুর বলেন, ‘তিনি (শোভন) স্বাগত জানাতে এসেছেন। অভিনন্দন জানিয়েছেন। আমিও তাকে স্বাগত জানিয়েছি। তিনি বলেছেন, তারা আমাদের সাথে একসাথে কাজ করতে চান। আমরাও একসাথে কাজ করতে আগ্রহী।’

নুর বলেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম একটা দৃষ্টান্তমূলক নির্বাচন হোক। কিন্তু বিভিন্ন অনিয়ম কারচুপির কারণে আমাদের সেই আশা পূরণ হয়নি।’

এসময় ঘোষিত ক্লাস বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়ে ভিপি নুর বলেন, ‘হামলার বিষয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি সাংগঠনিক এবং বিশ্ববিদ্যাল কর্তৃপক্ষ কী ব্যবস্থা নেয় সেটা আমরা দেখবো।’

এদিকে সন্ধ্যায় পৌনে সাতটায় টিএসসির ফটকে ছাত্রলীগবিরোধী পাঁচটি প্যানেলের নেতারা যৌথভাবে সংবাদ সম্মেলন করে একই দাবি পুনর্ব্যক্ত করে ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। সব পদে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে আগামীকাল দুপুর ১২টায় সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশ থেকে পাঁচ প্যানেলের সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে বিক্ষোভ মিছিল করবে।

গতকালের নির্বাচন অবিলম্বে বাতিল চেয়ে সংবাদ সম্মেলনে সবার পক্ষে প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্যের লিটন নন্দী বলেন, ‘আমরা ডাকসু নির্বাচনের পুনঃতফসিল চাই।’

এ সময় সেখানে ছিলেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের মুহাম্মদ রাশেদ খান, স্বতন্ত্র জোটের অরণি সেমন্তী খান, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদের এ আর এম আসিফুর রহমান, ছাত্র ফেডারেশনের উম্মে হাবিবা বেনজির ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

ঢাকাটাইমস/১২মার্চ/এনএইচএস/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :