সব সিনেমা হল বন্ধ ১২ এপ্রিল থেকে

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৩ মার্চ ২০১৯, ১৮:৩৩ | প্রকাশিত : ১৩ মার্চ ২০১৯, ১৮:০২

দীর্ঘদিন ধরে লোকসান গুনতে গুনতে ধৈর্যের শেষ সীমায় এসে পৌঁছেছে হল মালিকরা। এভাবে চলতে থাকলে আর কিছুদিন পর তাদের সর্বস্বান্ত হয়ে যেতে হবে এমনটা আশঙ্কা করছেন তারা। তাই আগামী ১২ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি।

বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ও মধুমিতা সিনেমা হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ পরে ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘সিনেমা হলের ব্যবসা আমাদের পারিবারিক ব্যবসা। অনেক হলের মালিকের ক্ষেত্রেই তাই। এ রকম প্রেক্ষাপটে দিনের পর দিন লোকসান গুনে আমরা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু আর কত? এরপর এই ব্যবসা ধরে রাখতে ভিটেবাড়ি বিক্রি করতে হবে।’

ভালো চলচ্চিত্রের অভাবও প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ করে হওয়ার একটি অন্যতম কারণ বলে জানান নওশাদ। বলেন, ‘একটা সিনেমা হল টিকিয়ে রাখার জন্য প্রচুর ভালো কন্টেন্ট দরকার। কিন্তু ভালো সিনেমার সংখ্যা এত অপ্রতুল যে সিনেমা হল টিকিয়ে রাখা সম্ভব নয়। তাই আমরা এ রকম সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

প্রদর্শক সমিতির সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, দেশে বর্তমানে ছবি নির্মাণের সংখ্যা বছরে ৩৫-৪০টি। বিদেশি ছবি আমদানি বিশেষ করে ভারতসহ উপমহাদেশের ছবি আমদানির ক্ষেত্রে রয়েছে নানা বাধা-নিষেধ।

সিনেমা হলের এই দুরবস্থা কাটাতে একাধিকবার দায়িত্বশীলদের সঙ্গে কথা বলে কোনো লাভ হয়নি জানিয়ে নওশাদ বলেন, ‘আমরা এখনো কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। আমরা চাই তারা চলচ্চিত্রশিল্প টিকিয়ে রাখার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। তা না হলে হল বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে আসা আমাদের পক্ষে সম্ভব হবে না।’

সংবাদ সম্মেলন আরও উপস্থিত ছিলেন প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস, মিয়া আলাউদ্দিন প্রমুখ।

প্রায় প্রতি বছর রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে একাধিক সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। প্রদর্শক সমিতির সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, দেশে সিনেমা হলের সংখ্যা ১২৩৫ থেকে কমতে কমতে বর্তমানে ১৭৪টিতে দাঁড়িয়েছে।

 (ঢাকাটাইমস/১৩মার্চ/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :