‘দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবাসীদের কাজের সুযোগ কম’

হাসান মাসুম, লেসথো
| আপডেট : ১৮ মার্চ ২০১৯, ১৮:১২ | প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০১৯, ২১:২৩

দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবাসীদের কাজের সুযোগ নেই বললেই চলে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটিতে থাকা বাংলাদেশের হাইকমিশনার শাব্বির আহমেদ চৌধুরী। ঢাকাটাইমসকে দেয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন। সম্প্রতি লেসথো স্টেট লাইব্রেরিতে বাংলাদেশ পোয়েট্রি কর্নার উদ্বোধন শেষে ঢাকাটাইমসের স্থানীয় প্রতিবেদক হাসান মাসুমকে তিনি এ সাক্ষাৎকার দেন।

হাইকমিশনার বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকা একটি বড় দেশ। এখানে প্রায় তিন লাখ বাংলাদেশি বসবাস করছেন, যাদের বেশিরভাগই অবস্থান করছেন বেআইনিভাবে। দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবাসীদের কাজের সুযোগ নেই বললেই চলে। দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার অভিবাসন আইন কঠিন করেছে, যা অভিবাসনকে নিরুৎসাহিত করে।’

শাব্বির আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘তিনি যখন প্রথম প্রিটরিয়ে এলেন তিনি দেখলেন দূর-দূরান্ত থেকে প্রবাসী বাংলাদেশিরা পাসপোর্ট নবায়ন বা অন্যান্য সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসে আসেন, কিন্তু প্রায়শ বিদ্যুৎবিভ্রাটের কারণে দূতাবাসের কর্মকাণ্ড ব্যাহত হচ্ছে। এরপর তিনি দূতাবাসে সোলার সিস্টেম (সৌর বিদ্যুৎ) সংযুক্ত করেন। ফলে দূতাবাসে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ চালু রয়েছে- যা প্রবাসী বাংলাদেশিদের সময় নষ্ট হতে দেয় না। তারা দূতাবাসে প্রয়োজনীয় কাজ যথাসময়ে শেষ করে গন্তব্যে ফিরে যেতে পারেন। এছাড়া তিনি মোবাইল পাসপোর্ট এন্ডোরসমেন্ট সিস্টেম চালু করেছেন, যার মাধ্যমে দক্ষিণ আফ্রিকার পাশের দেশসমূহে দূতাবাসের কর্মকর্তারা গিয়ে কনসুলার সার্ভিস দিয়ে থাকেন।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘তার যোগ্য নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রযুক্তি প্রবাসে সুফল বয়ে এনেছে প্রবাসীদের জন্য।’

লেসথোতে বাংলাদেশ পোয়েট্রি কর্নার প্রসঙ্গে হাইকমিশনার বলেন, ‘লেসথো দেশটি আকার-আয়তনে খুব বড় না হলেও এখানে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল। এখানকার জনগণ আন্তরিক। এখানে স্টেট লাইব্রেরিতে বাংলাদেশ পোয়েট্রি কর্নার উদ্বোধনের মাধ্যমে প্রথমবারের মত সরকারি পর্যায়ে বাংলাদেশের সঙ্গে লেসথো সরকারের যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের সূচনা হলো- তা প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য সুফল বয়ে আনবে।’

অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ সরকার লেসথোর সঙ্গে সাংস্কৃতিক বিনিময়, শিক্ষা, শিল্প, বাণিজ্য ও পর্যটন খাতে ঘনিষ্ঠ দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক গড়তে আগ্রহী হবে বলে তিনি মনে করেন।

শাব্বির আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘প্রবাসী বাংলাদেশিদের উদ্যোগে বাংলাদেশ পোয়েট্রি কর্নার চালু হওয়ার বিষয়টি তিনি বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাবেন এবং এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন।’

শাব্বির আহমেদ চৌধুরী দক্ষিণ আফ্রিকায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার। তিনি ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে বাংলাদেশ দূতবাসে কর্মরত। দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও লেসথো, সোয়াজিল্যান্ড, বোতসোয়ানা ও জাম্বিয়ায় যোগাযোগ রক্ষা করে কূটনৈতিক  কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছেন তিনি।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)-এর তড়িতকৌশল বিভাগ থেকে ১৯৮৮ সালে স্নাতক শেষ করে তিনি বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। শাব্বির আহমেদ চৌধুরী একজন সংস্কৃতিমনা ব্যক্তি। তিনি ভালো রবীন্দ্র সংগীত গাইতে পারেন এবং সুন্দর বাঁশি বাজান। স্ত্রী আবেদা চৌধুরী এবং দুই সন্তান নিয়ে তার পরিবার।

(ঢাকাটাইমস/১৭মার্চ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :