নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত থাকলে খালেদা জেলেই থাকবে: গয়েশ্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ মার্চ ২০১৯, ১৬:০৮ | প্রকাশিত : ১৯ মার্চ ২০১৯, ১৫:৫৯

নিজেদের সম্পদ রক্ষা করা ও মামলা থেকে নিজেকে দূরে রাখার চিন্তায় নেতারা ব্যস্ত থাকলে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে মানববন্ধনে একথা বলেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কৃষকদল মানববন্ধনটির আয়োজন করে।

খালেদার মুক্তিতে কর্মসূচি নিয়ে দলের নেতাদের সমালোচনা করে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘আপনারা প্রত্যাশা করতে পারেন। কিন্তু কোনও প্রত্যাশায় বাস্তবায়িত হয় না প্রচেষ্টা ছাড়া। কিছু করতে গেলে কিছু ক্ষয় হবে এ কথাটা মেনে পথ চলতে হবে।’

‘আমি নিরাপদে থাকবো, আমি চলে যাব না, আমি মামলা খাব না, আমার সম্পদ রক্ষা করতে হবে, এই ভয় যদি আপনাদের মাঝে কাজ করে, তাহলে আমাদের নেত্রী কারাগারে থাকবে।’

দলের নেতাদের দিকে ইঙ্গিত করে বিএনপি নেতা বলেন, ‘আপনি একটি রাজনৈতিক দল করেন, যে দলটি বার বার মানুষের ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় গেছে। তার বিপরিতে যে দলটি আছে তার চরিত্র কি? ভাষা কি, ইচ্ছে কি, রাজপথে থেকে এটা বুঝা দরকার।’

‘সেটা যদি বুঝতে না পারেন তাহলে যে দুর্গতিতে থাকার কথা সেটাই আসছে। খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্বাচন হবে না, শেখ হাসিনাকে রেখে নির্বাচন হবে না, কোনোটাই কার্য্যকর করলেন না।’

খালেদা জিয়াকে জেলখানা থেকে মুক্ত না করে নির্বাচনে যাওয়ার সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘সেই নির্বাচনে কেউ থাকলো জেলে, কেউ হাসপাতালে, কেউ বাড়িতে লুকিয়ে রইলেন মাঠেও নামলেন না। পারবেন না যখন, দানবের সঙ্গে লড়াই করতে যান কেন?’

নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘রাজনীতিতে পাণ্ডিত্য থেকে মানুষের বেশী প্রয়োজন মানুষের মনোভাব বোঝা। মানুষের মনোভাব বুঝতে পারে না তারা রাজনীতিতে কখনো সফলতা অর্জন করতে পারে না। জনগন কেউ কিছু দিতে পারে না।

‘আপনারা মুখে যা বলবেন কাজে তা করতে হবে। কারো কাছে চাওয়া নয়, দাবি আদায় করুন। আপনি আপনার শক্তি আপনার সমর্থন দিয়ে। আপনারা যদি নেতৃত্ব দিতে পারেন জনগণ আপনাদের নেতৃত্বে যুদ্ধ করার জন্য প্রস্তুত আছে।’

খালেদা জিয়ার মৃত্যু সংবাদ না শোনা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচলিত থাকবেন মন্তব্য করে গয়েশ্বর বলেন, ‘খালেদা জিয়া জেলখানায় আছে এটা তার (প্রধানমন্ত্রীর) স্বস্তি নয়, জেলখানায় খালেদা জিয়ার মৃত্যুর সংবাদ যতক্ষণ পর্যন্ত না শুনবেন ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি বিচলিত থাকবেন। এটা তার পণ, অঙ্গিকার। আর এজন্য তাকে এক সঙ্গে সহযোগীতা করছে প্রশাসন ও আদালত।’

‘খালেদা জিয়াকে সরকার ছাড়ার জন্য কারাগারে নেয়নি। সরকার তাকে শুধু কারাগারে রেখেই সন্তুষ্ট নয়, বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর কোনো কিছুতেই তৃপ্তি হয় না। তিনি তার অতৃপ্ত বাসনা নিয়েই রাজত্ব চালাবে, যতই পান ততই চান।’

কর্মসূচিতে সভাপতির বক্তব্যে কৃষক দলের আহ্বায়ক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা হচ্ছে না, এটা এদেশের দৈন্যতারই বহিঃপ্রকাশ। দেশের গণতন্ত্র এখন জেলখানায় বন্দি। এটা কোনো সভ্য দেশ নয়।’

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব  খায়রুল কবির খোকন,  কৃষক দলের সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ঢাকাটাইমস/১৯মার্চ/বিইউ/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :