‘ব্যাংকগুলো কিছুতেই সুদের হার কমাতে চায় না’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ মার্চ ২০১৯, ২২:১৬

বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো কিছুতেই সুদের হার কমাতে চায় না বলে মন্তব্য করেছেন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। সরকার ঋণের সুদ ১০ শতাংশের নিচে আনার জন্য কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে এসএমই উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্য বিক্রয় ও  প্রদর্শনীর জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম `ঐক্য’র www.oikko.com.bd উদ্বোধন করেন এইচ টি ইমাম।  এসময় উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন  কে এম হাবিব-উল্লাহ, এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক  সফিকুল ইসলাম ‘ঐক্য’ সভাপতি শাহীন আকতার রেনী। অনুষ্ঠানের উস্থাপনা করেন  অপু মাহফুজ।

এইচ টি ইমাম বলেন, ‘আমাদের এখানে সবচেয়ে বড় সমস্যা বাণিজ্যিক  ব্যাংকগুলো তারা কিছুতেই লোনের রেট কমাতে চায় না। এক সময় এমনও ছিল ১৫ থেকে ১৬ শতাংশ। এখনতো আমরা চাপ দিয়ে দিয়ে কমাতে কমাতে ১২ শতাংশে নিয়ে এসেছি ।  আমরাতো (সরকার) বলছি যে সিঙ্গাল (১০ শতাংশের নিচে) ডিজিটে আনতে হবে। তাহলেই আপনারা (উদ্যোগতারা) প্রতিযোগিতামূলকভাবে টিকে থাকতে পারবেন।’

‘এসএমই ( ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প) উদ্যোক্তারা যে মূলধন পাবেন সেটা যেন সহজ শর্তে পেতে পারেন তার ব্যবস্থা করা দরকার। এছাড়া সরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান আছে তারাও এ উদ্যোক্তাদের সহায়তা করতে পারে।’  এসময় তিনি এসএমই পণ্যের গুণগত মান  উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

এইচ টি ইমাম বলেন, ‘এই ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারাই একদিন মাঝারি হবে, এরপর বড় উদ্যোক্তা হবে। তাদের জন্য সহজ শর্তে ঋণের ব্যবস্থা করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘৮০ লাখ ক্ষুদ্র  ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের অন্যতম সমস্যা তাদের পণ্যের বাজারজাত করা। আশা রাখি এ প্লাটফর্মের মাধ্যমে তারা উপকৃত হবে। সরকার এসএমই উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টার দৃষ্টি আকর্ষণ করে এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন কে এম হাবিব-উল্লাহ বলেন, ‘আপনাকে কাছে পেয়ে বলছি, এসএমই ফাউন্ডেশনের জন্য অর্থ বরাদ্দ বাড়ানো প্রয়োজন। আমাদের ২০০ কোটি টাকা মূলধনের লভ্যাংশ ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকা পাই। তা দিয়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সিঙ্গাল ডিজিটে লোন দিই। এটা খুবই সামান্য টাকা। যেখানে এসএমই উদ্যোক্তা ৮০ লাখ, যাদের আয়ে দুই কোটি মানুষ চলে। গড় আয়ের ২৫ শতাংশ এ খাত থেকে আসে। তাই আমি বলবো এসএমই উদ্যোক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ যেন পেতে পারে তার ব্যবস্থা করার জন্য অনুরোধ জানাই।’

এসএমই উদ্যোক্তাদের পণ্য নিয়েঐক্য

এসএমই উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্য বিক্রয় ও  প্রদর্শনীর জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম `ঐক্য’র www.oikko.com.bd যাত্রা  শুরু হলো। অনুষ্ঠানে জানানে হয়,  অনলাইনে এসএমই উদ্যোক্তাদের পণ্য কেনার সব সুবিধা থাকবে ঐক্যতে।

‘উন্নয়নের জন্য এসএমই’ এই লক্ষ্যে যাত্রা ‍শুরু করা ঐক্য দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সর্ববৃহৎ এসএমই পণ্যের চেইন স্টোর ঐক্য স্টোর।  অনলাইন ঐক্য প্লাটফর্ম ছাড়াও বাংলাদেশের ৪৯১টি উপজেলায় ঐক্য স্টোর রয়েছে। যেখানে উদ্যোগতাদের পণ্য বিক্রয় ও প্রদর্শনীর জন্য রাখা যাবে। ঐক্য ডিজিটাল ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে এসএমই ক্লাস করা যাবে।

অনুষ্ঠানে পাঁচজন পুরস্কৃত

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের মিডিয়া বাজারে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে পাঁচজন উদ্যোক্তাকে  চ্যানেল আই এসএমই এক্সলেন্স অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়।

বালাদেশের হস্তশিল্পজাত পণ্যের আন্তর্জাতিক বাজার তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ আবদান রাখায় অ্যাওয়ার্ড পান উদ্যোক্তা বেলাল হোসেন, গ্রামীণ জনপদে ঐতিহ্যবাহী নকশি কাঁথা সংরক্ষণে অবদান রাখায় রুনা বেগম, বহুমুখী পাটপণ্য ও হস্তশিল্পকে বিশ্বদরবারে পৌঁছে দেবার জন্য কোহিনূর ইয়াসমীন, পরিবেশ সংরক্ষণে সফল উদ্যোক্তা হবিবুর রহমান জুয়েল এবং অবকাঠামো নির্মাণ শিল্পে ব্যবহৃত সমগ্রী নির্মাণে ও কর্মসংস্থান সৃষ্ঠিতে শায়লা সবরীন।

অনুষ্ঠান শেষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চলমান জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০১৯ ঘুরে দেখেন এইচ টি ইমাম। মেলা চলবে ২২ মার্চ পর্যন্ত।

(ঢাকাটাইমস/১৯মার্চ/জেআর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :